হক ফারুক আহমেদ    |    
প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০:০০ | অাপডেট: ১৪ এপ্রিল, ২০১৭ ০৯:৪১:১৯
এলো বৈশাখ এলো রে
ওই যে পূর্ব তোরণ-আগে/দীপ্ত নীলে, শুভ্র রাগে/প্রভাত রবি উঠল জেগে/ দিব্য পরশ পেয়ে,/ নাই গগনে মেঘের ছায়া/যেন স্বচ্ছ স্বর্গকায়া/ভুবন ভরা মুক্ত মায়া/ মুগ্ধ হৃদয় চেয়ে।... বাংলা নতুন বর্ষকে এভাবেই আবাহন করেছেন কবি জীবনানন্দ দাশ। বাঙালির জীবনে আজকের সূর্য নিয়ে এসেছে নতুন বারতা। আজ পহেলা বৈশাখ। বঙ্গাব্দ ১৪২৪-এর প্রথম দিন। চৈত্রের রুদ্র দিনের শেষে বাংলার ঘরে ঘরে আজ উৎসব। বাঙালির সবচেয়ে বড় অসাম্প্রদায়িক আয়োজন।

হাজারো বছরের ঐতিহ্যের বহমানতায় আজ বাঙালি হারিয়ে যাবে বাঁধভাঙা উল্লাসে। লাখো প্রাণ বেরিয়ে আসবে ঘর ছেড়ে, নামবে সড়কে। উচ্ছ্বাসে ভরে যাবে বাংলার মাঠ-ঘাট-প্রান্তর। সব জরা, সব গ্লানি মুছে ফেলে সমস্বরে গেয়ে উঠবে নতুন দিনের গান। বিগত বছরের হাসি-কান্নার হিসাব চুকিয়ে শুরু করবে নতুন যাত্রার। জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে একসঙ্গে গেয়ে উঠবে ‘এসো হে বৈশাখ, এসো এসো’। গ্রাম থেকে শহর, নগর থেকে বন্দর, আঁকা-বাঁকা মেঠো পথ- সব জায়গায় আজ দোলা দেবে বৈশাখ। মুড়ি মুড়কি, মণ্ডা মিঠাইয়ের সঙ্গে সঙ্গে নাচে-গানে, ঢাকে-ঢোলে, শোভাযাত্রায় পুরো জাতি বরণ করবে নতুন বছরকে। খোলা হবে হালখাতা। চলবে মিষ্টিমুখ। অনেকে আবার মেতে উঠবেন নগর সংস্কৃতির দান পান্তা-ইলিশ খাওয়ার উৎসবে।

বাঙালি বীরের জাতি। কোনো কিছুই তাকে টলাতে পারে না তার আদর্শ থেকে। বিশ্বের বহু দেশের মতোই আমাদেরও ওপর উষ্ণ নিঃশ্বাস ফেলছে ভয়াল জঙ্গিবাদ। কিন্তু তাকে পিষে ফেলে আজ বাঙালি গাইবে মানবতার জয়গান।

বৃহস্পতিবার চৈত্রসংক্রান্তির নানা আয়োজনের মধ্য দিয়েই মূলত শুরু হয়েছে ১৪২৩কে বিদায় জানানো আর নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর উৎসব। আজ পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। নববর্ষ উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি। সরকারি-বেসরকারি টেলিভিশন ও রেডিও চ্যানেলগুলো এ উপলক্ষে প্রচার করছে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা। সংবাদপত্রগুলো প্রকাশ করেছে ক্রোড়পত্র ও বিশেষ নিবন্ধ। নির্বিঘেœ উৎসব পালনে দেশব্যাপী কঠোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। গতবারের মতো এবারও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ঘোষণা দিয়েছে- বিকাল ৫টার মধ্যে শেষ করতে হবে বৈশাখের উন্মুক্ত আয়োজন।

নতুন বছর উপলক্ষে দেশবাসীকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ, জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদসহ রাজনৈতিক দলের প্রধানরা।

অন্যান্য বছরের মতো এবারও সরকারিভাবে পালন করা হবে পহেলা বৈশাখ। এ উপলক্ষে বিভাগীয় শহর, জেলা শহর ও সব উপজেলায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও গ্রামীণ মেলার আয়োজন করবে স্থানীয় প্রশাসন। ইউনেস্কো সম্প্রতি মঙ্গল শোভাযাত্রাকে অবস্তুগত অপরিমেয় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে এবার প্রতি জেলা ও উপজেলায় আজ মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করা হচ্ছে।

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সব প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিজ ব্যবস্থাপনায় জাঁকজমকভাবে নববর্ষ উদযাপন করছে। বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলো বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে। নতুন বছরের প্রথম এ দিনটিতে আজ সব কারাগার, হাসপাতাল ও শিশু পরিবারে (এতিমখানা) উন্নত মানের ঐতিহ্যবাহী বাঙালি খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিশু পরিবারের শিশুদের নিয়ে ও কারাবন্দিদের পরিবেশনায় থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। কয়েদিদের তৈরি বিভিন্ন দ্রব্যাদি প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন এবং প্রতœতত্ত্ব অধিদফতরের ব্যবস্থাপনায় জাদুঘর ও প্রতœস্থানগুলো সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে আজ (শিশু-কিশোর, প্রতিবন্ধী ও ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা টিকিটে)।

এবারও পহেলা বৈশাখের মূল আয়োজনটি হবে রমনা উদ্যানের বটমূলে। ছায়ানটের এ আয়োজনের এবার পঞ্চাশ বছর পূর্তি। এবারের আয়োজনের মূল প্রতিপাদ্য- ‘আনন্দ, বাঙালির আত্মপরিচয়ের সন্ধান ও অসাম্প্রদায়িকতা’। এ বিষয়ে কথা বলবেন ছায়ানট সভাপতি ড. সন্জীদা খাতুন। সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে বের করা হবে মঙ্গল শোভাযাত্রা। ‘আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে বিরাজ সত্যসুন্দর’ প্রতিপাদ্যে এ শোভাযাত্রায় বিপথগামী তরুণদের আহ্বান জানানো হবে আলোর পথে আসার।

বাংলা নববর্ষ এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদ পরস্পর সম্পর্কযুক্ত - প্রধানমন্ত্রী : শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাঙালি জাতি বর্ষবরণ উৎসবকে ধারণ করেছে তাদের জীবনযাত্রা ও সংস্কৃতির অনুষঙ্গ হিসেবে। বাঙালি জাতীয়তাবাদী চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরা প্রগতি এবং অগ্রগতির দিকে ধাবিত হচ্ছি।’ বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে দেয়া বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী দেশবাসী ও প্রবাসী বাঙালিসহ সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, ‘অতীতের ভুলত্রুটি এবং গ্লানি ভুলে জীবনের সমৃদ্ধির প্রত্যাশায় আমরা আশায় বুক বাঁধি নতুন বছরের প্রথম দিনে। দেনা-পাওনা চুকিয়ে নতুন করে শুরু হয় জীবনের জয়গান। পহেলা বৈশাখ তাই যুগ যুগ ধরে বাঙালির মননে মানসে শুধু বিনোদনের উৎস নয়, বৈষয়িক বিষয়েরও আধার।’


 
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by