•       ধর্ষণের অভিযোগে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার ওসিসহ তিন পুলিশের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা
যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০:০০
একনেক বৈঠকে ৯ প্রকল্প অনুমোদন
ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে নতুন যুক্ত হওয়া ইউনিয়নগুলোর রাস্তা ও ড্রেন অবকাঠামো উন্নয়নসহ ৯ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৮ হাজার ৮৭৪ কোটি ১৬ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৭ হাজার ৩২৯ কোটি ১৬ লাখ, বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ৫০ কোটি ৯ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ১ হাজার ৪৯৪ কোটি ৯১ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।
বৈঠকে নদী ড্রেজিংয়ের পর উত্তোলিত পলি দিয়ে হলোব্লক তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, জমির মাটি দিয়ে ইট তৈরির ফলে একদিকে যেমন জমির উর্বরাশক্তি কমে যায়, অন্যদিকে তেমনি পরিবেশ দূষণ ঘটে। এই হলোব্লক তৈরি করা গেলে ইটের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। এজন্য দ্রুত একটি কারিগরি প্রকল্প নেয়ার তাগিদ দেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করার সময় এসব তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম এবং সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলমসহ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, গত অর্থবছরের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত ১৭টি একনেক বৈঠকে ১২৭টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। এগুলোর ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ২৬ হাজার ১৩৩ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের একই সময়ে ১৬টি একনেক সভায় ১৩১টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লাখ ৬৩ হাজার ৮৩৩ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের তুলনায়
অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন নব সংযুক্ত শ্যামপুর, দনিয়া, মাতুয়াইল এবং সারুলিয়া এলাকার সড়ক অবকাঠামো ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্প, এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৭৩৪ কোটি ২ লাখ টাকা। চট্টগ্রাম পানি সরবরাহ উন্নয়ন ও স্যানিটেশন প্রকল্প, ব্যয় হবে ১ হাজার ৮৯০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যয় হবে ৪৫৪ কোটি ৬২ লাখ টাকা। বাগেরহাট জেলায় ৮৩টি নদী বা খাল পুনর্খনন এবং মংলা-ঘষিয়াখালী চ্যানেলের নাব্য বৃদ্ধি প্রকল্প, ব্যয় হবে ৭০৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা। খামার যান্ত্রিকীকরণের মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি (২য় পর্যায়), ব্যয় হবে ৩৩৯ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। বিনার গবেষণা কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ এবং উপকেন্দ্রসমূহের উন্নয়ন, ব্যয় হবে ১৬০ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। তিনটি পার্বত্য জেলায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন, ব্যয় হবে ৫৬৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকা।




  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by