•       কোনো দলকে নির্বাচনে আনতে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করবে না নির্বাচন কমিশন: সিইসি
সাংস্কৃতিক রিপোর্টার    |    
প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০:০০ | অাপডেট: ১৮ নভেম্বর, ২০১৬ ০৪:৫০:০৬
তিন দিনের লিট ফেস্ট শুরু
সাহিত্যের আলোয় দূর হবে অন্ধকার
বাংলা একাডেমিতে ঢাকা লিড ফেস্ট-২০১৬ উদ্বোধন করছেন নোবেল জয়ী ভিএস নাইপল। এসময় উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর -যুগান্তর
সাহিত্যের যেমন আলো আছে, ঠিক তেমনি আছে ভালোবাসায় আবদ্ধ করার শক্তি। এ শক্তি জগতের সব ধরনের অন্ধকারকে দূর করতে পারে। বর্তমান বিশ্বের যত অরাজকতা, অশুভ শক্তির আস্ফালন তা চিরতরে বিতাড়িত করতে সাহিত্য অনন্য ভূমিকা পালন করতে পারে। বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসব ‘ঢাকা লিট ফেস্ট’র উদ্বোধনী দিনে সাহিত্যের এ মহাশক্তির বন্দনাই ছিল বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আসা সাহিত্যিক, লেখক, গবেষকদের মুখে মুখে।

দিনটিতে গোটা বাংলা একাডেমিজুড়েই ছিল সাজ সাজ রব। একাডেমির সবুজ প্রান্তর, পুকুর পাড়, ঐতিহাসিক বর্ধমান হাউসের চারদিক- সর্বত্রই ছোট-বড় নানা স্টল ও বিভিন্ন সেশন পরিবেশনের জন্য ছিল বেশ কিছু মঞ্চ। গোটা চত্বরে ঘুরছেন দেশ-বিদেশের লেখকরা। শুধু লেখক-সাহিত্যিক নন, শিল্প-সংস্কৃতির নানা শাখার মানুষের সরব উপস্থিতি এখানে।

এক বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন নোবেল জয়ী ত্রিনিদাদের সাহিত্যিক ভিএস নাইপল। বেলা সাড়ে ১১টায় একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে শুরু হয় মূল উদ্বোধনী পর্ব। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সম্মানিত অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বিশেষ অতিথি ছিলেন একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। স্বাগত বক্তব্য দেন তিন উৎসব পরিচালক- কাজী আনিস আহমেদ, আহসান আকবর ও সাদাব সায। এ সময় হুইল চেয়ারে মঞ্চে উঠেন ৮৪ বছর বয়সী পৃথিবীখ্যাত লেখক ভিএস নাইপল। সঙ্গে ছিলেন তার সহধর্মিণী নাদিরা নাইপল। অন্য অতিথিদের নিয়ে ফিতা কেটে ৩ দিনের এ উৎসবের উদ্বোধন করেন ভিএস নাইপল।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নাইপল বলেন, ‘ঢাকা এসে খুব ভালো লাগছে। উৎসব উদ্বোধন করতে পেরে আমি আনন্দিত।’ এ সময় তিনি খানিকটা রসিকতা করে বললেন, একবার একটা অনুষ্ঠানে তাড়াতাড়ি ফিতা কেটেছিলাম। তখন পাশে থাকা আমার এক বন্ধু বললেন, তাড়াতাড়ি ফিতা কাটতে নেই। আবেদনটা ধরে রাখতে ধীরে ধীরে কাটতে হয়। আমি বোধহয় এবারও তাড়াতাড়ি ফিতা কেটে ফেলেছি। ফিতা তো কাটলাম। এখন আমার হয়ে কেউ বক্তৃতাটা দিক। তার কথায় হেসে ওঠেন মিলনায়তন ভর্তি দর্শক-শ্রোতারা।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, সাহিত্য উৎসবটি একই সঙ্গে আমাদের সংস্কৃতিকে যেমন তুলে ধরছে, ঠিক তেমন করে আমাদের সামনে হাজির করছে বিশ্বসংস্কৃতি ও সাহিত্যকেও। আশা করি এ উৎসবের মধ্য দিয়ে সমৃদ্ধ হবে আমাদের অনুবাদ সাহিত্য। যার মাধ্যমে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে পারব আমাদের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও সাহিত্যকে।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, দেশে মুক্তমনা সাহিত্যিক-ব্লগার, লেখক-প্রকাশকের ওপর হামলা হয়েছে একাধিকবার। ফলে বিদেশীদের অনেকে এ দেশে আসতে শংকিত ছিলেন। কিন্তু আমরা চেষ্টা করেছি সব শংকা দূর করতে। তাই এ উৎসবটি আমাদের জন্য বেশ স্বস্তির।

উদ্বোধনী আয়োজনে ছিল জমকালো সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার পরিচালনায় একগুচ্ছ গান গেয়ে শোনান সুরের ধারার শিল্পীরা। তাদের পরিবেশিত সঙ্গীতগুলো ছিল- ‘শান্তি করো বরিষণ’, ‘ও আমার দেশের মাটি’, ‘আকাশভরা সূর্য তারা’ ও ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে’। গানের সুরে পরিবেশিত হয় নৃত্য। ৯০টি অধিবেশনে সাজানো এ সাহিত্য সম্মেলনের প্রথম দিনে অনুষ্ঠিত হয় ২৩টি অধিবেশন। উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতা শেষে শুরু হয় উৎসবের অধিবেশনগুলো। একাডেমির বর্ধমান হাউসের সামনে লনে মেহেদি হাসান ও তার বন্ধুরা বিভিন্ন কবির কবিতায় সুরারোপ করে সঙ্গীত পরিবেশন করেন। একই সময় কসমিক টেন্টে প্রদর্শিত হয় জয়া আহসান অভিনীত ও ইন্দ্রনীল রয় পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসার শহর’।

দুপুর ১টায় মূল মঞ্চে বিশ্বসাহিত্য নিয়ে ‘ওয়ার্ল্ড ফিকশন : হিডেন রিয়েলিটি’ অধিবেশনে ড্যানিয়েল হানের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন নিকোলাস লেজার্ড, আনজুম হাসান, নায়েল এলতোখ্রি ও এমি স্যাকভিলে। কেকে টি স্টেজে ‘ইমাজিনিং হিস্টোরি’ অধিবেশনে সাদ জেড হোসাইনের সঞ্চালনায় অংশ নেন সাজিয়া ওমর ও বাপ্পাদিত্য চক্রবর্তী।

দুপুর ২টায় প্রধান মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘আমেরিকা : এক্সেপশনাল নো মোর’ শীর্ষক অধিবেশন। এতে সঞ্চালক ছিলেন শ্রীরাম কারি। আলোচনায় অংশ নেন ভারতের এনডিটিভির প্রধান সম্পাদক বারখা দত্ত ও বেন জোদাহ, মার্কিন কবি জেফরি ইয়াং ও আরব সাহিত্যের কিউরেটর মার্সিয়া লিন্যাক্স কিউলি। ডোনাল্ড ট্রাম্পের মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়া প্রসঙ্গে তারা বলেন, ‘এর প্রভাব বিশ্বের একেক জায়গা একেক রকম পড়বে। জলবায়ু সমস্যা মোকাবেলায় ভুগতে পারে বাংলাদেশ। ইউরোপীয় সামরিক জোট ন্যাটো টিকবে কিনা সেটা নিয়েও সংশয় দেখা দিয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে বর্তমানে যে স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে তাতে ব্যাঘাত ঘটতে পারে।’

পাশাপাশি লনে ‘সাম্প্রদায়িকতার এপার ওপার’ নিয়ে আলোচনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কবি মাসুদুজ্জামান, কবি জহর সেন মজুমদার, লেখক সেমন্তি ঘোষ ও লেখক মাসুদুল হক। এতে সঞ্চালক ছিলেন আহমেদ রেজা।

বিকাল সাড়ে ৩টায় মূল মঞ্চে বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত মীর মোশাররফ হোসেনের ‘বিষাদ সিন্ধু’র ইংরেজি অনুবাদ ‘ওশান অব সরো’র প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। বইটির অনুবাদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ফকরুল আলম।



একই সময় লনে ‘সময়ের কবিতা সময়ান্তরের কবিতা’ শীর্ষক অধিবেশনে কবি আসাদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় কবিতা পাঠ করেন কাজী রোজি, হাবীবুল্লাহ সিরাজী, আসাদ মান্নান, শিহাব শাহরিয়ার, কুমার চক্রবর্তী, পাবলো শাহী, মুস্তাফিজ শফি, ওবায়েদ আকাশ, হাসান মাহমুদ, জুয়েল মাজহার, মাহমুদ শাওন প্রমুখ।

একই সময় ব্র্যাক স্টেজে অভিনেতা ইরেশ যাকের আলোচনা করেন ভারতের প্রাবন্ধিক অন্তরা গাঙ্গুলির বই ‘তনয়া তানিয়া’ নিয়ে। ঠিক এ সময় কসমিক টেন্টে ভিএস নাইপলের ওপর নির্মিত বিবিসির বিশেষ তথ্যচিত্র ‘দ্য স্ট্রেঞ্জ লাক অব ভিএস নাইপল’ প্রদর্শিত হয়।

বিকালে মূল মঞ্চে বারখা দত্তের সঙ্গে আলোচনায় বসেন উৎসব পরিচালক সাদাফ সায্। আলোচনার বিষয় ছিল বারখা দত্তের বিতর্কিত গ্রন্থ ‘দ্য আনকোয়াইট ল্যান্ড’। একই সময় ভ্রমণপিপাসু অস্ট্রেলিয়ান লেখক টিম কোপ কে কে স্টেজে আলোচনায় বসেন তার লেখা ‘জার্নিস্ অ্যান্ড কোয়েস্ট ইন ট্রুথ’ বইটি নিয়ে। এ সময় পুলিৎজার বিজয়ী মার্কিন কবি বিজয় শেষাদ্রি আমেরিকার কবিতা নিয়ে ব্র্যাক স্টেজে আলোচনা করেন। একই সময়ে রিচার্ড বিয়ার্ড লাইভ এডিটিংয়ের ওপর কসমিক টেন্টে বিশেষ কর্মশালা পরিচালনা করেন।

সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় মূল মঞ্চে প্রয়াত সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের জীবনী নিয়ে আলোচনা করেন কবিপুত্র দ্বিতীয় সৈয়দ হক, কবি সাজ্জাদ শরীফ, সাহিত্যিক আহমেদ মাযহার। এ পর্ব সঞ্চালনা করেন পারভেজ হোসেন। এ সময় সৈয়দ শামসুল হক রচিত ‘নীল দংশন’ ইংরেজি অনুবাদ ‘ব্লু ভেনম’র অংশবিশেষ মঞ্চস্থ হয়।

আজ শুক্রবার উৎসবের দ্বিতীয় দিনের কর্মসূচি শুরু হবে সকাল ৯টায়। চলবে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত। এদিন মূল মঞ্চে সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় অনুষ্ঠিত হবে ‘দি রাইটার অ্যান্ড দ্যা ওয়ার্ল্ড : ভি এস নাইপল’। এতে উৎসব পরিচালক আহসান আকবরের সঙ্গে নিজের জীবন ও সাহিত্যকর্ম নিয়ে কথোপকথনে মেতে উঠবেন ভিএস নাইপল।


 
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর
শেষ পাতা বিভাগের অারও খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by