যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০:০০
হানিফ মৃধার মৃত্যু
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যাখ্যা দাবি বিএনপির
তবে কি জঙ্গি বানিয়ে হত্যা করা হচ্ছে -ফখরুল
সম্প্রতি রাজধানীর আশকোনায় র‌্যাবের অস্থায়ী ক্যাম্পে জঙ্গি হামলার ঘটনায় র‌্যাবের হাতে গ্রেফতারের পর হানিফ মৃধার মৃত্যুর বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা দাবি করেছে বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় প্রশ্ন রাখেন, এ ধরনের যুবকদের তুলে নিয়ে জঙ্গি বানিয়ে হত্যা বা জঙ্গিবাদকে প্রকাশ করা হচ্ছে কিনা।
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ২০ দলীয় জোটের শরিক ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) উদ্যোগে এ আলোচনা সভা হয়। এতে এনপিপির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, খোন্দকার লুৎফর রহমান, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানীর আজাহারুল ইসলাম চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, ডিএলের সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি প্রমুখ।
গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের বরাত দিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, আমি অত্যন্ত স্পষ্টভাবে ব্যাখ্যা দাবি করছি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে, কোনটি সত্য? র‌্যাববের ব্যাখ্যা সত্য, নাকি পরিবারের দাবি সত্য? পরিবার বলছে, চরমোনাইয়ের জলসা থেকে ফেরার পথে শীতলক্ষ্যা নদীর কাঁচপুর থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি সাদা পোশাকে র‌্যাবের লোকেরা হনিফকে তুলে নিয়ে যায়। যদি এ কথা সত্য হয়ে থাকে, তাহলে
আমরা কোন দেশে বাস করছি? সরকারের একটি আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী, যাদের দায়িত্ব জনগণের নিরাপত্তা দেয়া, সঠিক তথ্য জাতির কাছে তুলে ধরা, তাহলে এটা কী? আমি দাবি করছি, সুষ্ঠু তদন্ত করে সঠিক তথ্য জানাতে হবে।
‘বর্তমান সরকার গভীর ভয়ংকর খেলায় মেতেছে’ অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সেই খেলা বাংলাদেশকে কোথায় নিয়ে যাবে, আমরা জানি না। বাংলাদেশকে আজ জঙ্গিরাষ্ট্র হিসেবে চিহ্নিত করা শুরু হয়ে গেছে। এরই মধ্যে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান- এ উপমহাদেশের তিনটি রাষ্ট্রকে আমেরিকা জঙ্গি রাষ্ট্র হিসেবে চিহ্নিত করেছে। আমরা মনে করি, জঙ্গিবাদকে এ সরকার ব্যবহার করছে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে, তাদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য। তারা জঙ্গিবাদের প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটনে আন্তরিক নয়।
মির্জা ফখরুল বলেন, গুলশানে ইতালীয় নাগরিক সিজারি তাভেল্লা হত্যার পর আমরা বলেছিলাম, এ আগুন নিয়ে খেলবেন না। জঙ্গিবাদের আগুন ভয়াবহ আগুন। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের লেশমাত্র নেই। সুফিবাদের মধ্য দিয়ে, শান্তির মধ্য দিয়ে এদেশের সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে, পরস্পরের সহনশীলতার মধ্য দিয়ে এদেশ গড়ে উঠেছে। এখানে ধর্মপ্রিয়তা আছে, ধর্মান্ধতা নেই। সরকারকে বলব, জঙ্গিবাদকে নিয়ে খেলবেন না। এর সুষ্ঠু তদন্ত করুন। এর সমাধান করতে হবে।
জঙ্গিবাদ দমনে জনগণকে সম্পৃক্ত করে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে ফের আহ্বান জানান ফখরুল। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে যান, আমরা সেটাও চাই। আমাদের সঙ্গে ভারতের যে সমস্যা তার সমাধান চাই। আমরা তিস্তা নদীর পানি চাই। আমরা ফারাক্কা বাঁধে যে সর্বনাশ হয়েছে, তার পুনরাবৃত্তি চাই না। আমরা অভিন্ন নদীর যে ন্যায্য হিস্যা, আন্তর্জাতিক নদীর পানির ন্যায্যসঙ্গত যে দাবি রয়েছে, আমরা যেন পাই, তার ভাগবাটোয়ারা নিশ্চিত করতে হবে। সীমান্তে বেআইনিভাবে হত্যা বন্ধ করতে হবে। অন্যান্য যেসব বিষয় রয়েছে, সেগুলোর সমাধান করতে হবে। কিন্তু কোনো মতে আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব বিপন্ন হয়, আমাদের স্বার্থকে নষ্ট করে নয়। নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচন চাই। তবে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় থাকবে, তারা সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করবে, সেই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে- তার কোনো কারণ নেই। বিএনপি মহাসচিব বলেন, পত্রিকায় দেখলাম, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তাঁত শিল্প শেখ মুজিবুর রহমান চলে যাওয়ার পর ধ্বংস হয়ে গেছে। ঐতিহাসিক সত্যটা কী? শহীদ জিয়াউর রহমান তাঁত শিল্পকে পুনরুজ্জীবিত করেছিলেন। তাঁত বোর্ড গঠন করেছিলেন, সেই বোর্ড গঠন করার মধ্য দিয়ে পববর্তীকালে তাঁত শিল্পে অনেক বেশি উন্নয়ন হয়েছে।



  • সর্বশেষ খবর
শেষ পাতা বিভাগের অারও খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by