রংপুর ব্যুরো    |    
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০:০০
দিনাজপুরে অটোরাইস মিল
বয়লার বিস্ফোরণে মৃত বেড়ে ৩ : রমেকে ভর্তি ১৬
তদন্ত কমিটি গঠন
দিনাজপুরে একটি অটোরাইস মিলে বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে তিনজনে দাঁড়িয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি রয়েছেন ১৬ জন।
বুধবার সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের গোপালগঞ্জ মোড় শেখহাটিতে মেসার্স যমুনা অটোমেটিক রাইস মিলে ওই বিস্ফোরণ ঘটে। দগ্ধ হন কর্মরত ৩০ শ্রমিক। এ দুর্ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। তবে এদিন এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।
নিহত তিনজন হলেন- দিনাজপুর সদর থানার রামজীবনপুর গ্রামের সত্য রায়ের স্ত্রী রঞ্জনা রায়, একই থানার ভবানীপুরের জহির উদ্দিনের ছেলে মোকছেদ আলী ও আরিফুল ইসলাম। এর মধ্যে রঞ্জনা ও মোকছেদ ঘটনার দিন মারা যান। বৃহস্পতিবার মারা যান আরিফুল। রমেক হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে ভর্তি রয়েছেন মুন্না রায়, মুকুল রায়, রোস্তম আলী, রঞ্জিৎ কুমার রায়, শফিকুল ইসলাম, উদয় চন্দ্র বর্মন, শফিকুল ইসলাম, দুলাল রায়, এনামুল হক, দেলোয়ার হোসেন, সাইদুল হক, বাদল রহমান, আনিসুল হক, বীরেন চন্দ্র, মনোরঞ্জন রায় ও সাজেদুল হক।
সার্জারি বিভাগের প্রধান চিকিৎসক ও সহকারী অধ্যাপক মারুফুল ইসলাম তিনজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি আরও জানান, যাদের দিনাজপুর থেকে পাঠানো হয়েছে, তাদের সবাই গড়ে ৮৫ থেকে শতভাগ দগ্ধ হয়েছেন।
গঠিত কমিটিকে ৪৮ ঘণ্টার সময় দেয়া হয়েছে। কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবুর রহমান। তিনি জানান, তারা শুক্রবার (আজ) ঘটনাস্থল ঘুরে প্রতিবেদন জমা দেবেন।
হসাপাতালে চিকিৎসাধীন মুন্না হাসানের ভাই জাহিদ হাসান জানান, তারা শ্রমিক পরিবারের সদস্য, চিকিৎসার খরচ জোগানোর মতো সামর্থ্য নেই। হাসপাতালেও নেই সব ওষুধ। তিনি অভিযোগ করেন, মিল কর্তৃপক্ষ তাদের কোনো সাহায্য করছে না। একই অভিযোগ করেন চিকিৎসাধীন সফিকুল ইসলামের ভাই আমিনুল ইসলামও।



  • সর্বশেষ খবর
খবর বিভাগের অারও খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by