¦
বিচার পেতে ১৮ ঘাটে পয়সা দিতে হয়

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০১৫

দেশের সাধারণ মানুষকে বিচার পেতে হলে আদালতের ১৮ ঘাটে পয়সা দিতে হয় বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক আইনমন্ত্রী ও সুপ্রিমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু। তিনি বলেন, আদালত প্রাঙ্গণে সাধারণ মানুষ আসে ন্যায়বিচারের জন্য। কিন্তু তারা ন্যায়বিচার না পেয়ে অবিচারের শিকার হচ্ছেন। অনেক সময় চিন্তা না করেই আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়। একটিবারও চিন্তা করা হয় না-এটা ন্যায়বিচার হল কি না। শনিবার সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে পরিবেশ ও মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
মতিন খসরু বলেন, এ দেশে সাধারণ মানুষকে বিচার পেতে হলে উকিল, মুহুরি, পিয়ন, পেশকার, রিকশা, বাসসহ সব জায়গায় টাকা দিতে হয়। একজন বিচারপ্রার্থীকে কেন এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়-অনুষ্ঠানে উপস্থিতদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন তোলেন এই আইনজীবী।
শুধু ন্যায়বিচারের জন্যই মামলা হচ্ছে না উল্লেখ করে সাবেক আইনমন্ত্রী বলেন, অনেক সময় শত্র“তা চরিতার্থ করতেও মামলা করা হয়। একটি ঘটনায় ৫ জন জড়িত থাকলে ২৫ জনের নামে মামলা দেয়া হচ্ছে। এগুলো বন্ধ করতে হবে। সমাজে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। তাহলে মানবসেবা হবে।
মানবতার সেবার উদাহরণ দিতে গিয়ে ফিজিওথেরাপির স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সিআরপির প্রতিষ্ঠাতা ভ্যালেরি অ্যান টেইলরের উদাহরণ টানেন আবদুল মতিন খসরু। তিনি বলেন, ভেলেরিকে স্যালুট ও অভিনন্দন জানাই এ জন্য যে, সে ভিনদেশ থেকে এসে এদেশে মানবতার সেবায় কাজ করছেন। তার কাছ থেকে আমাদের শিখতে হবে। তার সেবার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close