•       লালমনিরহাটের গুন্টিঘর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, নিহত ২
বগুড়া ব্যুরো    |    
প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০৬:৪১
আহত ইউপি সদস্যের মৃত্যু: হামলাকারীর বাড়িঘর ভাংচুরের অভিযোগ

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে আহত  ইউপি সদস্যের মৃত্যুর ঘটনায় হামলাকারীর বাড়িঘর ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
 
বুধবার রাতে উপজেলার নিজবরুরবাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
 
স্থানীয় সূত্র জানায়, প্রতিপক্ষের ইটের আঘাতে আহত ইউপি সদস্য মাইন তরফদার (৩৫) বুধবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। তার মৃত্যুর খবর শুনে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী হামলাকারী মানিক মিয়ার বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে।
 
পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
 
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হাটশেরপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নিজবরুরবাড়ি গ্রামে রাস্তায় মাটি কাটার কাজ চলছে। ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও সোলায়মান তরফদারের ছেলে মাইন তরফদার গত শনিবার দুপুরে ওই স্থানে গিয়ে রাস্তার পাশে থাকা অস্থায়ী দোকান সরাতে বলেন। এতে রাজি না হওয়ায় দোকানী একই গ্রামের খোকা মাস্টারের ছেলে মানিক মিয়ার সাথে তার বাকবিতণ্ডা হয়। 
 
খবর পেয়ে চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান মতি ঘটনাস্থলে আসেন। এক পর্যায়ে মানিক মিয়া চেয়ারম্যানের সামনেই ইট দিয়ে ইউপি সদস্য মাইন তরফদারের মাথায় আঘাত করেন। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। এসময় ইউপি সদস্য ও দোকানদারের পক্ষের লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে মুখোমুখি হন। দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
 
সারিয়াকান্দি থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত ইউপি সদস্য মাইনকে প্রথমে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছিল।
 
আহতের ভাই শামীম ৯ জানুয়ারি সারিয়াকান্দি থানায় মানিক মিয়া, মনি ও সবুজসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ সবুজকে গ্রেফতার করে। বুধবার আসামিরা আদালত থেকে জামিন পান।
 
এদিকে বুধবার রাত ৮টার দিকে ইউপি সদস্য মাইন মারা গেলে তার বিক্ষুব্ধ সমর্থকরা অন্যতম হামলাকারী মানিকের বাড়িতে ভাংচুর করেন। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। 
 
সারিয়াকান্দি থানার ওসি এএসএম ওয়াহেদুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, বুধবার রাত ৮টার দিকে ইউপি সদস্য ঢাকায় মারা গেছেন। তার সমর্থকরা উত্তেজিত হলেও ভাংচুর করতে পারেনি।

  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর
সারা দেশ বিভাগের অারও খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by