•       প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে 'মোরা', চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারসহ কয়েকটি উপকূলীয় জেলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত; সেন্টমার্টিন-টেকনাফে বইছে ঝড়ো হাওয়া
মনপুরা (ভোলা) প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল, ২০১৭ ১৬:০২:২৯ | অাপডেট: ২১ এপ্রিল, ২০১৭ ১৬:১১:৪০
উপকূলে বৃষ্টির পানিতে ভেসে গেল কৃষকের স্বপ্ন
২ হাজার একর রবিশস্যের ক্ষতি
ভোলার মনপুরা উপকূলে গত দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে রবিশস্যের মাঠ পানিতে ডুবে গেছে। এতে উপকূলের হাজারো কৃষকের ২ হাজার একর রবি শস্যের মাঠ সম্পূর্ণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

স্থানীয় কৃষক নিজাম উদ্দিন হাওলাদার জানান, ১ লাখ টাকা ধারদেনা করে প্রায় ৬ একর জমিতে আলু, মরিচ, মুগ ও বাদামের চাষ করেন তিনি। কিন্তু মৌসুমের প্রথম জোয়ারের পানি প্রবেশ করে আংশিক ক্ষতি হলেও এবার দুই দিনের বৃষ্টিতে পুরো ফসলের মাঠ পানিতে ডুবে সম্পূর্ণ ফসল ক্ষতি হয়েছে বলে জানান। একই কথা বলেন কৃষক সোলেমান, জব্বার, আলমগীর, হাফেজসহ অনেকে।

কৃষি অফিস সূত্র জানায়, বৃষ্টির পানিতে মুগ ১২ শত একর, মরিচ ৬৫০ শত একর, বাদাম একশত একর, মিষ্টি আলু ১২০ একর, ফেলন ডাল ১০০ একর জমির ফসল সম্পূর্ণ ক্ষতি হয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে মাঠের পর মাঠের রবি শস্যের ফসল পানিতে ডুবে রয়েছে। পানি সরানোর কোন ব্যবস্থা না থাকায় মাঠ জুড়ে শুধুই বৃষ্টির পানি।

উপজেলা উদ্ভিদ সংরক্ষণ উপ-সহকারি গোপি নাথ দাস যুগান্তরকে জানান, এবার প্রাকৃতিক দুর্যোগে রবি শস্য নেই বললে চলে। যা ছিল তা বৃষ্টির পানিতে শেষ হয়ে গেছে। এতে কৃষকের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সরকারি সাহায্য না পেলে কৃষক ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না।
  • সর্বশেষ খবর
সারা দেশ বিভাগের অারও খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by