•       প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে 'মোরা', চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারসহ কয়েকটি উপকূলীয় জেলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত; সেন্টমার্টিন-টেকনাফে বইছে ঝড়ো হাওয়া
অনলাইন ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ২০ মার্চ, ২০১৭ ১৬:৩৫:০৫ | অাপডেট: ২০ মার্চ, ২০১৭ ১৭:১৯:০৯
'আমি ধর্ষিত হওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলাম'
জনপ্রিয় মার্কিন রিয়েলিটি শো তারকা কিম কার্দিয়িশান জানিয়েছেন, ডাকাতরা তাকে বেঁধে বিছানায় নিয়ে যাওয়ার পর তিনি ধর্ষিত হওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছিলেন।

মার্কিন সময় রোববার 'কিপিং আপ উইথ দ্য কারদিশিয়ান্স'শোর এপিসোডে এ কথা জানান কিম।

গত বছরের ৩ অক্টোবর রাতে প্যারিসে ডাকাতির শিকার হয়েছিলেন এই খ্যাতিমান তারকা।

ওই ঘটনার ব্যাপারে তিনি বলেন, রাতের বেলার এ ডাকাতির ঘটনার সময় ডাকাতরা তাকে ধর্ষণের পর মেরে ফেলবে বলে ধারণা করছিলেন তিনি। এরজন্য তিনি মানসিকভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছিলেন।

তবে সশস্ত্র ডাকাতরা কিমের বিয়ের আংটিসহ এক কোটি ডলারের গহনা লুট করলেও তাকে ধর্ষণ বা আঘাত করেনি।

ওই ঘটনার ১৭জনকে গ্রেফতার করেছিল ফরাসী পুলিশ। এরমধ্যে ১০ জনের বিরুদ্ধে ডাকাতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

৩৬ বছরের লাস্যময়ী কিম কারদিশিয়ান দুই সন্তানের মা।গত বছর প্যারিস ফ্যাশন সপ্তাহ উপলক্ষে বোন কোর্টনি কারদিশিয়ান নিয়ে শহরটিতে ভ্রমণ করেন তিনি।

সেখানে একটি প্রাইভেট বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তারা। ঘটনার রাতে তার দেহরক্ষীকে নিয়ে কোর্টনি বাইরে গেলে ডাকাতির শিকার হন বাড়িটিতে একাকি থাকা কিম।

ঘটনার ব্যাপারে কিম জানান, প্যারিসের পুলিশের পোশাক পরা ও মুখ ঢাকা একদল  সশস্ত্র ব্যক্তি বাড়িটিতে ঢুকে পড়ায় প্রথমে তিনি কিছুই বুঝতে পারেননি।

কিম বলেন, ডাকাতদের একজন আমার পা ঝাপটে ধরে। তখন আমার শরীরের নিচের দিকে কোনো কাপড় পরা ছিল না। সে আমাকে টেনে বিছানার দিকে নিয়ে যায়। তখন আমার মনে হয়, তারা আমাকে ধর্ষণ করতে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ওই সময় আমি নিজেকে এর জন্য পুরোপুরি মানসিকভাবে প্রস্তুত করে ফেলি। তবে ওই ব্যক্তি আমাকে ধর্ষণ করেনি। সে টেপ দিয়ে আমার মুখ বেঁধে ফেলে এবং আমার দুই পা একসঙ্গে বেঁধে ফেলে। এরপর তারা আমার মাথায় বন্দুক ঠেকায়। তখন আমরা মনে হয়েছিল, তারা আমার মাথায় গুলি করতে যাচ্ছে।

ওই সময় কিম তার বোন কোর্টনির কথা ভাবছিলেন বলে জানান। তিনি বলেন, আমি শুধু এই প্রার্থনা করছিলাম যে বিছানায় আমার মৃতদেহ দেখার পর যেন কোর্টনির সাধারণ জীবনে ফিরতে পারে।

ঘটনার স্মৃতিচারণ করে কিম জানান, ডাকাতরা টেপ দিয়ে মুখ বেঁধে ফেলার আগে তাদের রুমে নিয়ে আসতে বাধ্য হওয়া তত্ত্বাবধায়ককে তিনি বলেছিলেন, তাদের বলুন আমার বাচ্চা ও পরিবার আছে।

তিনি বলেন, আমি শুধু বলেছিলাম আমরা কি মারা যাচ্ছি। তারা আমার কথা বুঝবে না। দয়া করে আপনি তাদের বলুন যে আমার বাচ্চা ও সংসার আছে, দয়া করে বাঁচিয়ে রাখুন।

এরপর ডাকাতরা তার ৪০ লাখ ডলারের বিয়ের আংটির দিকে ইশারা করে তার কাছে অর্থ দাবি করে।

কিম বলেন, তখন আমি বলি আমার কাছে কোনো অর্থ নেই। তারপর তারা আমাকে টেনে বারান্দা দিয়ে সিঁড়ির দিকে নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, ওই সময় আমি একদিকে তাদের বন্দুকের দিকে, আরেক দিকে তাদের সিঁড়ির দিকে তাকাচ্ছিলাম। আমি ভাবছিলাম তারা পেছন দিক থেকে আমাকে গুলি করবে।

তবে ডাকাতরা কিম কারদিশিয়ানকে গুলি করার পরিবর্তে বাথরুমে ছুড়ে ফেলে পালিয়ে যায়।

কিভাবে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটতে পারলো তা স্মরণ করে কিম বলেন, সামাজিক মাধ্যম স্ন্যাপচ্যাটে আমি জানিয়েছিলাম যে সবাই বাইরে যাওয়ায় আমি বাড়িতে একা আছি। আমার ধারণা এর থেকে ডাকাতরা জেনেছিল যে আমার দেহরক্ষী কোর্টনির সঙ্গে বাইরে গেছে এবং আমি সেখানে একা ছিলাম। আর ডাকাতরা এই সুযোগটিই ব্যবহার করেছিল।

 
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by