অনলাইন ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ১৯ জুন, ২০১৭ ১৭:৩৩:০৫
লন্ডনে মুসলিম বিদ্বেষী হামলা: নিহত ব্যক্তি বাংলাদেশি
উত্তর লন্ডনের ফিনসবারি পার্কের মসজিদে হামলার পর স্থানীয় তিন মুসলিমের সঙ্গে কথা বলছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা
যুক্তরাজ্যের লন্ডনে মুসল্লিদের ওপর চালানো মুসলিম বিদ্বেষী সন্ত্রাসবাদী হামলায় নিহত ব্যক্তি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত।

স্থানীয় সময় রোববার রাতে উত্তর লন্ডনের সেভেন সিস্টার্স রোডের ফিনসবারি পার্কে অবস্থিত মুসলিম ওয়েলফেয়ার মসজিদের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলায় বাংলাদেশি প্রবীণ নিহত এবং আরও ১০ মুসল্লি আহত হন।

৪৮ বছর বয়সী হামলাকারী 'আমি সব মুসলিমকে হত্যা করব' বলে তারাবির নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বের হওয়া মুসল্লিদের ওপর দ্রুতগতির একটি কাভার্ড ভ্যান উঠিয়ে দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে যুক্তরাজ্যের সংবাদ মাধ্যম টেলিগ্রাফ জানায়, এ ঘটনায় নিহত প্রবীণ ব্যক্তি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত। তবে সংবাদ মাধ্যমটি নিহত ব্যক্তির বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি।

টেলিগ্রাফ জানায়, তিনি (নিহত ব্যক্তি) রোববার সন্ধ্যায় ইফতার শেষে মাগরিবের নামাজ পড়তে ওই মসজিদে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তারাবির নামাজ শেষে ফেরার পথে মুসলিম বিদ্বেষী হামলার শিকার হয়ে প্রাণ হারান।

সুলতান আহমেদ নামে এক দাতব্য কর্মী টেলিগ্রাফকে জানান, তার চাচা মুসল্লিদের ওপর হামলার ঘটনার একজন প্রত্যক্ষদর্শী।

সুলতান বলেন, আমার চাচা মসজিদ থেকে বের হয়ে সামনে যাচ্ছিলেন। এ সময় তার সামনের একজন প্রবীণ মুসল্লি অসুস্থ হয়ে মাটিতে পড়ে যান। এ ঘটনা দেখে অন্য মুসল্লিরা তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে যান। ঠিক সেই সময়েই মুসল্লিদের ওপর কাভার্ড ভ্যানটি চালিয়ে দেয়া হয়।

অতর্কিত এ হামলায় ঘটনাস্থলেই ওই প্রবীণ নিহত হন। এছাড়া আরও অন্তত দুজন মুসল্লি মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন।

সুলতান তার চাচার বরাত দিয়ে জানান, ঘটনার সময় হামলাকারী গাড়িচালক 'আমি সব মুসলিমকে হত্যা করতে চাই' বলেও চিৎকার করছিল।

টেলিগ্রাফ আরও কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে জানায়, মুসল্লিরা মসজিদে নামাজ পড়ার সময় কাভার্ড ভ্যানটি রাস্তার এক পাশে দাঁড় করানো ছিল। নামাজ শেষে মুসল্লিরা বের হওয়ার পরপরই গাড়িটি তাদের ওপর চালিয়ে দেয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হামলা চালানো ওই ভ্যানটি নামাজ শেষ করে লোকজন বের হওয়ার অপেক্ষায় বেশ কিছুক্ষণ ধরেই রাস্তার এক পাশে দাঁড় করানো ছিল।

এদিকে এক বিবৃতিতে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ জানায়, রাত ১২টা ২০ মিনিটের পর তাদের পথচারীদের ওপর গাড়ি চালিয়ে দেয়ার খবর জানানো হয়।

মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-সহকারী কমিশনার নেইল বসু বলেন, মুসলিম ওয়েলফেয়ার মসজিদের কাছের ফুটপাথে একজন ব্যক্তিকে প্রাথমিক চিকিৎসা (ফাস্ট এইড) দেয়ার সময় হামলার ঘটনা ঘটে।

দুঃখজনকভাবে ওই ব্যক্তির মৃত্যু ঘটে। হামলার কারণেই ওই ব্যক্তি মারা গেছেন তা এখনই বলা ঠিক হবে না বলে মন্তব্য করেন নেইল বুস।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে মুসল্লিদের ওপর এ হামলার ঘটনাকে 'সম্ভাব্য সন্ত্রাসবাদী হামলা' হিসেবে বিবেচনা করার কথা বলেছেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সকালে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
 
আল জাজিরা জানিয়েছে, মুসল্লিদের ওপর হামলার ঘটনা নিয়ে এরই মধ্যে তদন্ত শুরু করেছে যুক্তরাজ্যের কাউন্টার টেরোরিজম কমান্ড।

পবিত্র রমজান মাসে মুসল্লিদের ওপর এ হামলার ঘটনায় ক্ষোভ জানিয়েছে মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন (এমসিবি)। সংগঠনটি যুক্তরাজ্যের মসজিদগুলোতে অতিরিক্ত নিরাপত্তার আহ্বান জানিয়েছে।

এদিকে মুসল্লিদের ওপর যে ধরনের হামলা হয়েছে তার প্রকৃতি বিচার করে মুসলিম সম্প্রদায়কে আশ্বস্ত করতে বাড়তি তৎপরতা চালনো হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
 
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by