কৌতুক

 রাফিয়া আক্তার 
১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৬:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাস্তার মাঝখানে দাঁড়িয়ে এক পাগল রাস্তা বন্ধ করে রেখেছে। পাগলের উৎপাতে রাস্তায় জ্যাম লেগে গেছে। তবুও পাগলটা কিছুতেই সরছে না। একচালক উত্তেজিত হয়ে বলল, ‘ওই পাগলা, সরবি? না তোর গায়ের ওপর দিয়া গাড়ি চালামু?

‘আরে যা যা! আমারে ভয় দেখায়! একটু আগে মাথার ওপর দিয়া আস্ত বিমান চলে গেল তাতেই কিছু হইল না, তোর তো এটা গাড়ি!’

*

ফুটপাতে এক বেকারকে শুয়ে থাকতে দেখে এক পথচারী বলল, ‘ব্যাটা আরামে ঘুমাচ্ছিস, কাজ করতে পারিস না?’

বেকার : কাজ কইরা কী হইব?

পথচারী : কাজ করলে টাকা-পয়সা কামাইতে পারবি।

বেকার : টাকা-পয়সা কামাইয়া কী হইব?

পথচারী : টাকা-পয়সা কামাইলে বাড়ি-গাড়ি হইব।

বেকার : বাড়ি-গাড়ি দিয়া কী হইব?

পথচারী : আরামে ঘুমাইতে পারবি।

বেকার : বুঝলাম, আমি তো এতক্ষণ তাই করছিলাম। খামোখাই

বিরক্ত করলেন।

*
গাধা : আমার খুব কষ্ট। আমার মালিক আমাকে খুব মারে।

কুকুর : এরপরও পড়ে আছিস কেন! তুই এখান থেকে পালিয়ে যা।

গাধা : না, সেটা সম্ভব না।

কুকুর: কেন?

গাধা : আরে আমার মালিকের সুন্দরী মেয়েটা যখন লেখাপড়া করতে চায় না, তখন মালিক তার মেয়েকে বলে, তোকে এই গাধাটার সঙ্গে বিয়ে দেব! তাই এত মার খেয়েও এখানে পড়ে আছি!

গ্রন্থনা: রাফিয়া আক্তার

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন