তামিমের উইকেট আমাকে আত্মবিশ্বাসী করেছে: মাশরাফি

  স্পোর্টস রিপোর্টার ০৮ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

তামিম ইকবাল-মাশরাফি বিন মুর্তজা
তামিম ইকবাল-মাশরাফি বিন মুর্তজা। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) রেকর্ড গড়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। রংপুর রাইডার্সের এই অধিনায়ক মঙ্গলবার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে ৪ ওভারে ১১ রানে ৪ উইকেট শিকার করেন। মাশরাফির এই বোলিং ফিগারই বিপিএলের ছয় আসরে সেরা।

এদিন তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, ইভিন লুইস এবং কুমিল্লার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের উইকেট তুলে নেন মাশরাফি। খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে চার উইকেটের মধ্যে কোন উইকেটটা স্পেশাল।

এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, তামিমের উইকেটটা ইম্পরট্যান্ট ছিল। ও আমার বোলিং সবসময় ভালো খেলে। আমার বিপক্ষে ওর স্ট্রাইক রেটও ভালো। ওর উইকেটটা নেয়ার কারণে আমার কনফিডেন্ট লেভেলের জন্য ভালো হয়েছে। তারপরে স্মিথ, লুইস, ওরা কি করতে পারে তা আমরা সবাই জানি। আমার ক্ষেত্রে তামিমের উইকেটটা ইম্পরট্যান্ট ছিল।

গত শনিবার বিপিএলের চলতি ষষ্ঠ আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে মাশরাফির রংপুরের বিপক্ষে ৪ ওভারে ১৪ রানে ৪ উইকেট শিকার করেন চিটাগাং ভাইকিংসের দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার রবি ফ্রাইলিংক।

মঙ্গলবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফির গতির সামনে দাঁড়াতেই পারেননি কুমিল্লার তারকা ব্যাটসম্যানরা।

সময়ের ব্যবধানে উইকেট পড়ে যাওয়ায় শেষ পর্যন্ত ৬৩ রানে অলআউট কুমিল্লা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৮ বলে ২৫ রান করেন কুমিল্লার পাকিস্তানি অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি।

ইনিংসের শুরুতেই কুমিল্লার ব্যাটিং লাইনআপ ভেঙে দেন মাশরাফি। ১৮ রানে কুমিল্লার টপ অর্ডার তিন ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, ইভিন লুইস এবং ইমরুল কায়েসকে সাজঘরে ফেরান মাশরাফি।

এরপর পাকিস্তানের অলরাউন্ডার শোয়েব মালিককে ফেরান শফিউল ইসলাম। চারে ব্যাটিংয়ে নামা অস্ট্রেলিয়ান সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে সাজঘরে পাঠান মাশরাফি।

১৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে কার্যত ছিটকে যায় কুমিল্লা। এরপর সাতে ব্যাটিংয়ে নামা পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি দলকে উত্তরণের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি এনামুল হক বিজয়, সাইফউদ্দিনরা ১৮ বলে ২৫ রান করে অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফেরেন আফ্রিদি।

এরপর মেহেদী হাসান এবং আবু হায়দার রনিরা প্রত্যাশিত ব্যাটিং করতে না পারায় ১৬.২ ওভারে ৬৩ রানে অলআউট হয় কুমিল্লা।

রংপুরের হয়ে মাশরাফি ৪ ওভারে ১১ রানে নেন ৪ উইকেট। এছাড়া ৩.২ ওভারে ৩ উইকেট নেন নাজমুল ইসলাম অপু। ২ ওভারে ৮ রানে ২ উইকেট নেন শফিউল ইসলাম।

৬৪ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৪৮ বল হাতে রেখে ৯ উইকেটে জয় পায় রংপুর রাইডার্স। দলের জয়ে ব্যাট হাতে ৩৬ ও ২০ রান করে করেন মেহেদী মারুফ ও রাইলি রুশো। বিপিএল সেরা বোলিং করে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন মাশরাফি।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: তামিম ইকবাল, ইভিন লুইস, ইমরুল কায়েস, স্টিভ স্মিথ, শোয়েব মালিক, এনামুল হক বিজয়, শহীদ আফ্রিদি, সাইফউদ্দিন, আবু হায়দার রনি, মেহেদী হাসান ও মোহাম্মদ শহীদ।

রংপুর রাইডার্স: রাইলি রুশো, ক্রিস গেইল, মেহেদী মারুফ, মোহাম্মদ মিঠুন, রবি বোপারা, ফরহাদ রেজা, বেনি হাওয়েল, মাশরাফি বিন মুর্তজা, নাজমুল ইসলাম অপু, শফিউল ইসলাম ও সোহাগ গাজী।

ঘটনাপ্রবাহ : রংপুর রাইডার্স: বিপিএল ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×