মালান-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে লড়াকু পুঁজি খুলনার

  স্পোর্টস ডেস্ক ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

মাহমুদউল্লাহ,

এখন পর্যন্ত ৩ ম্যাচ খেলেও কোনো জয় পায়নি খুলনা টাইটানস। ফলে প্রথম জয়ের খোঁজে দলটি। সেই লক্ষ্যে চিটাগং ভাইকিংসকে ১৫২ রানের টার্গেট দিল টানটানসরা। লড়াকু পুঁজির জন্য কৃতিত্ব দিতে হবে ডেভিড মালান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। দলের মোট সংগ্রহের অর্ধেকই করেছেন দুজনে মিলে!

টস জিতে খুলনাকে প্রথমে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান চিটাগং অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। উড়ন্ত সূচনা করেন দুই ওপেনার পল স্টার্লিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকী। তবে হঠাৎই খেই হারান স্টার্লিং। নাঈম হাসানের বলে আবু জায়েদকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। ওপেনিং সঙ্গী হারানোর পরপরই রবি ফ্রাইলিংকের শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ২০ রানে ফেরেন জুনায়েদ সিদ্দিকী।

পরে খেলা ধরেন মাহমুদউল্লাহ ও মালান। প্রথমে ধীর-লয়ে নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া তৈরি করেন তারা। দুজনের মধ্যে দারুণ মেলবন্ধন গড়ে উঠলে ছোটান স্ট্রোকের ফুলঝুরি। রীতিমতো চোখ রাঙান এ জুটি। মালানকে ফিরিয়ে সেই চোখ রাঙানি থামান আবু জায়েদ। ফেরার আগে ৪৩ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ৪৫ রানের নান্দনিক ইনিংস খেলেন তিনি। তাতে লড়াকু পুঁজির পথেই থাকে খুলনা।

খানিক বাদেই সানজামুল ইসলামের শিকার হয়ে ফেরেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। সেই রেশ না কাটতেই তার দ্বিতীয় শিকার হয়ে সাজঘরের পথে ধরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ফেরার আগে ৩১ বলে ৪ চারে ৩৩ রান করেন অধিনায়ক। এরপর খালেদ আহমেদের বলি হয়ে যাওয়া-আসার মিছিলে যোগ দেন নাজমুল হোসেন শান্ত। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ওভারে ৬ উইকেটে ১৫১ রান তুলতে সক্ষম হয় মাহমুদউল্লাহ বাহিনী।

ঘটনাপ্রবাহ : বিপিএল-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×