থিসেরার নৈপুণ্যে কুমিল্লার জয়

  স্পোর্টস ডেস্ক ২২ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৫৯ | অনলাইন সংস্করণ

জয়ের পর উল্লসিত কুমিল্লার টিম ম্যানেজমেন্ট।
ঢাকা ডায়নামাইটসকে পরাজিত করে উল্লসিত কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের টিম ম্যানেজমেন্ট। ছবি: সংগৃহীত

থিসেরা পেরেরার দুর্দান্ত বোলিংয়ে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে ৭ রানের জয় পেল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দলের জয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেন পেরেরা। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ৩ ওভারে ১৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন কুমিল্লার এই শ্রীলংকান অলরাউন্ডার। অবশ্য তার আগে ব্যাট হাতে ৩৫ বলে ৪৮ রান করেন শামসুর রহমান শুভ।

এই জয়ের মধ্য দিয়ে ৮ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট অর্জন করল ইমরুল কায়েসের নেতৃত্বাধীন কুমিল্লা। তবে হেরে গেলেও আট ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই আছে সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন ঢাকা।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে ১৫৪ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৫০ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় ঢাকা। এমন করুণ অবস্থায় দুর্দান্ত ব্যাটিং করে দলকে খেলায় ফেরানোর পাশাপাশি জয়ের স্বপ্ন দেখান আন্দ্রে রাসেল ও সাকিব।

একটা সময়ে জয়ের জন্য ঢাকার প্রয়োজন ছিল ৩৬ বলে ৪৯ রান। ব্যাটিংয়ে ছিলেন সাকিব আল হাসান ও একের পর এক ছক্কা হাঁকানো আন্দ্রে রাসেল। তাদের ব্যাটিংয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখে ঢাকা।

ইনিংসের ১৫তম ওভারে প্রথম বোলিংয়ে এসেই ৮ রান দিয়ে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা রাসেলের উইকেট তুলে নেন থিসেরা পেরেরা। সাজঘরে ফেরার আগে ২৪ বলে দৃষ্টিনন্দন ৫টি ছক্কায় ৪৬ রান করেন রাসেল। ঠিক পরের ওভারের শেষ বলে সাকিবকে ফেরান শহীদ আফ্রিদি।

১৭তম ওভারে বোলিংয়ে এসে ৫ রান দিয়ে শুভাগত হোম ও নুরুল হাসান সোহানের উইকেট তুলে নেন পেরেরা। মাত্র দুই ওভারে ১৩ রানে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে কুমিল্লার জয় প্রায় নিশ্চিত করেন পেরেরা। বাকি ছিল শুধু আনুষ্ঠানিকতা। সেই আনুষ্ঠানিকতা সারেন সাইফউদ্দিন।

শেষ দিকে স্বীকৃত কোনো ব্যাটসম্যান না থাকা এবং রান রেটে বেড়ে যাওয়ায় মোহাম্মদ নাইম ও রুবেল হোসেনের পক্ষে ডায়নামাইটসকে জয়ের বন্দরে পৌঁছান সম্ভব হয়নি। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ঢাকার প্রয়োজন ছিল ১৯ রান। সাইফউদ্দিনের করা ওভারে ১১ রানের বেশি নিতে পারেনি ঢাকা।

১৫৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের প্রথম ওভারে উইকেট হারায় ঢাকা ডায়নামাইটস। দলীয় ৭ রানে ফেরেন ডায়নামাইটসের আফগান ক্রিকেটার হজরতউল্লাহ জাজাই।

চলতি বিপিএলে খেলতে এসে প্রথম দুই ম্যাচে ৭৮ ও ৫৭ রানের ইনিংস খেলে আলোচনায় চলে আসেন হজরতউল্লাহ। এরপর অফ ফর্মে চলে যান তিনি। আগের তিন ম্যাচে ৬, ৪ ও ১ রানে আউট হওয়া জাজাই মঙ্গলবার ফেরেন ১ রানে। ইনিংসের প্রথম ওভারে বোলিংয়ে এসেই ঢাকার উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন সাইফউদ্দিন।

এরপর দলীয় ২১ রানে অন্য ওপেনার রনি তালুকদারকে ফেরান ওয়াহাব রিয়াজ। দুই উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়া দলকে খেলায় ফেরানোর আগেই রান আউট সুনীল নারিন। তার আগে ১৮ বলে ২০ রান করেন এই ওপেনার।

এরপর ১৫ বলে ১৯ রান করা দারিশ রাসুলিকে সাজঘরে ফেরান শহীদ আফ্রিদি। দলকে উত্তরণের চেষ্টা করছেন সাকিব আল হাসান।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৮ উইকেটে ১৫৪ রান

শামসুর রহমান শুভ, তামিম ইকবাল ও থিসেরা পেরেরার ঝড়ো ইনিংসে ৮ উইকেটে ১৫৩ রান সংগ্রহ করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন শুভ। ৩৪ রান করেন তামিম। ইনিংসের শেষ দিকে রান আউট হওয়ার আগে ১২ বলে ২৫ রান করেন পেরেরা।

ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে ২৪ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন সাকিব আল হাসান। আর এই ৩ উইকেট শিকারের মধ্য দিয়ে চলতি বিপিএলে ১৭ উইকেট নিয়ে শীর্ষে উঠে যান সাকিব।

মঙ্গলবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় কুমিল্লা। দলীয় ১৭ রানে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন ওপেনার এনামুল হক বিজয়।

আন্দ্রে রাসেলের বলে শুভাগত হোমের ক্যাচে পরিণত হওয়ার আগে ৭ বলে ১ রান করার সুযোগ পান বিজয়। এর আগের দুই ম্যাচে ৪০ ও ২৬ রান করে ফেরেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের এই ওপেনার।

বিজয়ের বিদায়ের পর তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধা করতে পারেননি অধিনায়ক ইমরুল কায়েস। রুবেল হোসেনের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৯ বলে মাত্র ৭ রান করে ফেরেন জাতীয় দলের এই ওপেনার।

দলীয় ২৭ রানে বিজয়-ইমরুলের উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়া দলকে খেলায় ফেরাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেন ওপেনার তামিম ইকবাল। ২৯ বলে দুই ছক্কা ও এক চারের সাহায্যে ৩৪ রান করতেই বন্ধু সাকিবের বলে বিভ্রান্ত হন তামিম।

দেশিয় ক্রিকেটারদের মধ্যে তামিম ইকবাল এবং সাকিব আল হাসানের মধ্যে বোঝাপড়া অনেক ভালো। তারা দুজন ভালো বন্ধু। বিপিএলের ২৬তম ম্যাচে বন্ধু তামিম ইকবালের উইকেট শিকার করে বোলারদের তালিকায় শীর্ষে উঠে যান সাকিব। সাকিবের বলে বাউন্ডারিতে ক্যাচ তুলে দেন তামিম। ক্যাচটি তিনবারে প্রচেষ্টায় তালুবন্দি করেন রনি তালুকদার।

এরপর শহীদ আফ্রিদি ও শামসুর রহমান শুভর উইকেট তুলে নেন সাকিব। তামিম-আফ্রিদি ও শামসুরের উইকেট শিকারের আগে চলতি বিপিএলে ১৪ উইকেট নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে ছিলেন সিলেট সিক্সার্সের তারকা পেসার তাসকিন আহমেদ ও ঢাকা ডায়নামাইটসের সাকিব আল হাসান। সাত ম্যাচে ১৪ উইকেট শিকার করেন তাসকিন।

সাকিবের ঘূর্ণি বলে বিভ্রান্ত হয়ে ১৪.৪ ওভারে ১১২ রানে ৫ উইকেট হারায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ৮ বলে ১৬ রান করে ফেরেন আফ্রিদি। সাকিবের তৃতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৩৫ বলে ৪৮ রান করেন শামসুর রহমান শুভ। ইনিংসের শেষ দিকে ১২ বলে ৩ ছক্কার সাহায্যে ২৫ রান করে রান আউট হন থিসেরা পেরেরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: ২০ ওভারে ১৫৩/৮ (শামসুর ৪৮, তামিম ৩৪, পেরেরা ২৬; সাকিব ৩/২৪)।

ঢাকা ডায়নামাইটস: ২০ ওভারে ১৪৬/৯ (রাসেল ৪৬, সাকিব ২০, নারিন ২০; পেরেরা ৩/১৪, আফ্রিদি ২/১৮)।

ফল: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৭ রানে জয়ী।

ঘটনাপ্রবাহ : কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: বিপিএল ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×