‘ব্লাকে বিক্রি বন্ধ হলে টিকিট পেতাম’

  আল-মামুন ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:৩১ | অনলাইন সংস্করণ

বিপিএল

‘শুনেছি একটা সময় খাদ্যের অভাবে আমাদের দেশের অনেক মানুষ মারা গেছে। কিন্তু সেই সমস্যা কাটিয়ে এখন খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ। আগে যেখানে ৮-১০ কোটি মানুষের খাদ্যের যোগান দিতে সমস্যায় পড়তে হত, এখন তো ১৬ কোটিরও বেশি মানুষ। কই খাবারের অভাবে মারা গেছে এমন সংবাদ তো দেখি না। তাহলে কেন টিকিটের অভাবে বারবার স্টেডিয়ামের বাইর থেকে বাড়ি ফেরত যেতে হবে।’

এভাবেই বলছিলেন বিপিএল ষষ্ঠ আসরের ফাইনাল দেখতে শুক্রবার মিপুরে আসা মাঝ বয়সী এক সমর্থক। মাহমুদুল হাসান নামের এই সমর্থক সূদুর কুমিল্লা থেকে এসেছেন প্রিয় দলের সাপোর্ট করতে।

যুগান্তরের প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপচারিতায় চায়ের দোকানি এ সমর্থক হতাশা প্রকাশ করে বলেন, কোনোভাবেই টিকিট যোগার করতে পারিনি। আশায় ছিলাম স্টেডিয়ামে আসলে টিকিট কিনতে পারব। কিন্তু সকাল থেকেই স্টেডিয়ামের গেটে আছি, কিন্তু টিকিট পাইনি।

বিপিএল ফাইনাল দেখতে মিরপুরে এত বেশি দর্শক সমাগম হয়েছে যে, তিল পরিমাণ জায়গা ফাঁকা নেই। ২৫ হজার ধারণ ক্ষমতার স্টেডিয়াম লোকে লোকারণ্য। শুধু মাঠেই নয়, মাঠের আশপাশের রাস্তায় বিভিন্ন বাড়ির ছাদেও দর্শকদের উপচে পড়া ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স বনাম ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচের দিনে সকাল থেকেই মিরপুরে জড়ো হতে থাকেন ভক্ত-সমর্থকরা। দুপুরে টিকিট কিনতে আগ্রহীদের ঢল এতটাই বেড়ে যায়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সামাল দিতে হিমশিম খেতে হয়।

শুধু তাই নয়, দুপুরে শতাধিক সমর্থক টিকিটের জন্য মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দুই নম্বর তথা মূল গেইট ধাক্কা দিয়ে হটিয়ে ভেতরে ঢুকে পড়ে। পরে অবশ্য নিরাপত্তা কর্মীরা তাদের সড়িয়ে দিতে সক্ষম হন।

আদমজী ক্যান্টনমেন্ট স্কুল পড়ুয়া এক ছাত্র বাবা-মার সঙ্গে খেলা দেখতে এসে জানান, ক্রিকেট আমার পছন্দের খেলা। বাসায় বসে খেলা দেখার চেয়ে মাঠে এসে দেখার আনন্দটাই আলাদা। সবসময় চেষ্টা করি স্টেডিয়াম আসতে। কিন্তু টিকিট না পাওয়ার কারণে মাঠে আসা হয় না। বিপিএলের গত আসরের মতো এবারও ফাইনাল দেখে এসেছি। আপনি দেখেন আর মাত্র ১০ মিনিট পর খেলা শুরু হবে। অথচ স্টেডিয়ামের বাইরে হাজার হাজার মানুষ। আমার মনে হয় স্টেডিয়ামের ধারণ ক্ষমতা বাড়ানো হলে ভালো হয়। তখন অনেক বেশি মানুষ এক সঙ্গে খেলা দেখতে পারবে। টিকিটও সহজে পাওয়া যাবে।

রাজধানীর বেসরকারি কলেজে চাকরি করা আব্দুল কাইয়ুম নামের এক ক্রিকেট ভক্ত বলেন, খেলা দেখার জন্যেই এসেছি। কিন্তু টিকিট পাইনি। শুধু আমি না, আমার মতো এখানে হাজার হাজার মানুষ আছে। তারাও আমার মতো টিকিট পায়নি। আমার মনে হয় স্টেডিয়ামের ধারণ ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি ব্লাকে (কালোবাজারে) টিকিট বিক্রি বন্ধ হলে টিকিট পেতাম।

ঘটনাপ্রবাহ : বিপিএল-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×