যুগান্তর বেরোবি প্রতিনিধির ওপর হামলার প্রতিবাদে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

  রংপুর ব্যুরো ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ২১:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) যুগান্তর প্রতিনিধি রাব্বি হাসান সবুজ
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) যুগান্তর প্রতিনিধি রাব্বি হাসান সবুজ

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) যুগান্তর প্রতিনিধি রাব্বি হাসান সবুজের ওপর ছাত্রলীগ নামধারী সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন রংপুরে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলোক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

রোববার ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির ডাকে শেখ রাসেল চত্তরে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে।

সমাবেশ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় বেরোবির ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ সংবাদ সম্মেলন ডাক দিলে তা বয়কট করেছে সাংবাদিকরা।

সমাবেশে ক্যম্পাসের বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন।

সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি এইচএম নুর আলমের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের আহমেদ, একুশে টেলিভিশনের বিভাগীয় প্রতিনিধি ও সংবাদের নিজস্ব প্রতিবেদক লিয়াকত আলী বাদল, সময় টেলিভিশনের রংপুর প্রতিনিধি রতন সরকার, যুগান্তর রংপুর ব্যুরো প্রধান মাহবুব রহমান, ছাত্র ইউনিয়ন বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক আফরিন বেগম, চ্যানেল টুয়েন্টি ফোরের রংপুর প্রতিনিধি আনজারুল ইসলাম জুয়েল, জাগো নিউজের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি সজীব হোসাইন, জিটিভির রংপুর প্রতিনিধি পারভেজ রহমান, ছাত্রফ্রন্টের বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি যোগেশ ত্রিপুরা, উদীচীর বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি ওয়াদুদ সাদমান প্রমূখ।

এদিকে রাব্বি অসুস্থ থাকায় হাসপাতালের বেডে থেকে তার নির্ধারিত সেমিস্টার পরীক্ষা দেয়ার অনুমিত চেয়ে প্রক্টর বরাবর আবেদন করলেও অনুমতি মেলেনি। পরে হাসপাতালের চিকিৎসকের অনুমতি নিয়ে সে পরীক্ষা দিতে গেলে হলে অচেতন হয়ে পড়লে তাকে আবারও হাসপাতালে নেয়া হয়।

হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কি না? হাসপাতালে পরীক্ষার অনুমতি দেয়া হয়নি কেন? এ সব জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. আবু কালাম মো. ফরিদ উল ইসলাম বলেন, ‘মানববন্ধন থেকে আমার পদত্যাগ চাওয়া হয়েছে তাই আমি কোনো মন্তব্য করব না’।

এ বিষয়ে জানতে উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাতের চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সমাবেশ চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ সাংবাদিকদের কাছে ঘটনার সঙ্গে তাদের সম্পৃক্ততা অস্বীকার করেন।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি তুষার কিবরিয়া বলেন, ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগ জড়িত নয়। কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তারা তা জানেন না। বরং তারা ঘটনার সময় উপস্থিত থেকে বিষয়টি মিমাংসা করেছেন। হামলাকারী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ইতিহাস বিভাগের ছাত্র।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×