ঢাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ছাত্রলীগের বাধা, মারধর

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৪ জুলাই ২০১৯, ১৫:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আহনাফ তাহমিদ। ছবি-সংগৃহীত
ঢাবির তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আহনাফ তাহমিদ। ছবি-সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজধানীর সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে চলমান আন্দোলনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার চতুর্থ দিনের মতো ভবনগুলোয় তালা ঝোলানোর চেষ্টা করলেও ছাত্রলীগের কারণে তা সম্ভব হয়নি।

তবে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা আগামীকাল বৃহস্পতিবারও কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।

এদিকে আন্দোলনে অংশ নেয়ার অভিযোগে এক শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

সাত কলেজ সংকট সমাধানে গতকাল মঙ্গলবার উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেয় ছাত্রলীগ। স্মারকলিপি দেয়ার আগে দুপুরে অপরাজেয় বাংলায় এক সমাবেশে ক্লাস-পরীক্ষায় বাধা সৃষ্টিকারীদের ‘দাঁতভাঙা জবাব’ দেয়ার ঘোষণা দেন সংগঠনের নেতারা।

ঘোষণা অনুযায়ী ভোর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান নেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তাদের অবস্থানের কারণে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ও একাডেমিক কোনো ভবনে তালা ঝোলাতে পারেননি।

তবে আন্দোলনকারীদের দাবি, আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০টির বেশি বিভাগের শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছেন।

এদিকে সকালে কর্মসূচিতে অংশ নিতে দোয়েল চত্বর থেকে টিএসসি অভিমুখী সড়কে হাঁটছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের চার ছাত্রী।

একপর্যায়ে পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের সামনে এস এম হল শাখা ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী তাদের আটকান। নানা প্রশ্ন করে তাদের সঙ্গে মারমুখী আচরণ করতে থাকেন তারা।

এসময় আহনাফ তাহমিদ নামের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের প্রথম বর্ষের এক শিক্ষার্থী ওই রাস্তা দিয়ে রিকশায় করে যাচ্ছিলেন।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের কাছে গিয়ে ঘটনা জানতে চাইলে তাকে আন্দোলনকারী ভেবে ব্যাপক মারধর করা হয়। এতে তার চোখের কর্নিয়া আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ছাত্রলীগ কর্মীদের হামলায় আহনাফ তাহমিদের চোখে আঘাত লাগে। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে বাসায় পাঠানো হয়।

এসএম হলের ছাত্রলীগ কর্মী রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাবিল হায়দারের নেতৃত্বে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এদিকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারের সামনে সংবাদ সম্মেলন করেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। সেখানে আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী শাকিল মিয়া কালও তালা ঝোলানো ও ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বারবার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে আসছে। তাই শিক্ষার্থীরা প্রশাসনের ওপর আস্থা রাখতে পারছেন না। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের কর্মসূচি চলতে থাকবে। দাবি না মেনে যদি অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু করা হয়, সাধারণ শিক্ষার্থীরা তা ভালোভাবে নেবে না এবং সমুচিত জবাব দেবে।

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজ

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর
-

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×