ইবিতে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ, সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ
jugantor
ইবিতে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ, সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ

  ইবি প্রতিনিধি  

২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৪২:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ইবিতে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ, সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ
ইবিতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ। ছবি: যুগান্তর

পদবঞ্চিত বিদ্রোহী গ্রুপের নেতা-কর্মীদের ধাওয়ায় ক্যাম্পাস থেকে বিতাড়িত হয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। এতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটার আশঙ্কায় শনিবার ক্যাম্পাসে ছাত্র সংগঠনকে মিছিল ও সভা-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সব শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাসে চলাচলে পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে বলা হয়েছে। 

শুক্রবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ ও ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. আনিসুর রহমান স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

এদিকে সকাল থেকে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ এবং পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে সতর্ক করে মাইকিং করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সভা-সমাবেশ বন্ধ রাখতে কেন্দ্র থেকে ছাত্রলীগের উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের জানানো হয়েছে।

এদিকে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য যুগান্তরকে বলেন, ‘ক্যাম্পাস পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। পরিস্থিতি শান্ত রাখতে উভয় গ্রুপের নেতাদের সঙ্গে কথা বলছি। অতিদ্রুত তদন্ত কমিটি পাঠিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

দলীয় সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকিদাতা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুকে গ্রেফতার এবং তার শাস্তির দাবিতে শনিবার ক্যাম্পাসে পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা দিয়েছেন বর্তমান কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং পদবঞ্চিতরা। 

বৃহস্পতিবার থেকেই শনিবার বেলা ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল করে কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়ে নিজ নিজ গ্রুপ প্রচার চালায়।

এদিকে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব ক্যাম্পাসে আসেন। 

এমন খবরে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা সম্পাদক গ্রুপকে ধাওয়া দেন। ধাওয়া খেয়ে সাধারণ সম্পাদকসহ নেতাকর্মীরা দৌড়ে পালিয়ে যান। ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার সময় তাদের হাতে লাঠিসোটা, হকস্টিক, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র ছিল বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা। এ ঘটনার পর থেকে শিক্ষার্থীদের মধ্য আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ইবিতে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ, সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ

 ইবি প্রতিনিধি 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৪২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইবিতে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ, সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ
ইবিতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ। ছবি: যুগান্তর

পদবঞ্চিত বিদ্রোহী গ্রুপের নেতা-কর্মীদের ধাওয়ায় ক্যাম্পাস থেকে বিতাড়িত হয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। এতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটার আশঙ্কায় শনিবার ক্যাম্পাসে ছাত্র সংগঠনকে মিছিল ও সভা-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সব শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাসে চলাচলে পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ ও ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. আনিসুর রহমান স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে সকাল থেকে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ এবং পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে সতর্ক করে মাইকিং করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সভা-সমাবেশ বন্ধ রাখতে কেন্দ্র থেকে ছাত্রলীগের উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের জানানো হয়েছে।

এদিকে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য যুগান্তরকে বলেন, ‘ক্যাম্পাস পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। পরিস্থিতি শান্ত রাখতে উভয় গ্রুপের নেতাদের সঙ্গে কথা বলছি। অতিদ্রুত তদন্ত কমিটি পাঠিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

দলীয় সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকিদাতা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুকে গ্রেফতার এবং তার শাস্তির দাবিতে শনিবার ক্যাম্পাসে পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা দিয়েছেন বর্তমান কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং পদবঞ্চিতরা।

বৃহস্পতিবার থেকেই শনিবার বেলা ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল করে কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়ে নিজ নিজ গ্রুপ প্রচার চালায়।

এদিকে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব ক্যাম্পাসে আসেন।

এমন খবরে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা সম্পাদক গ্রুপকে ধাওয়া দেন। ধাওয়া খেয়ে সাধারণ সম্পাদকসহ নেতাকর্মীরা দৌড়ে পালিয়ে যান। ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার সময় তাদের হাতে লাঠিসোটা, হকস্টিক, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র ছিল বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা। এ ঘটনার পর থেকে শিক্ষার্থীদের মধ্য আতঙ্ক বিরাজ করছে।