জবিতে বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

  জবি প্রতিনিধি ১০ অক্টোবর ২০১৯, ১৮:২৮:১৪ | অনলাইন সংস্করণ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ক্লাস চলাকালীন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত নিয়মিত ছাত্র ছাড়া বহিরাগত ও দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দফতর থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞানচর্চার কেন্দ্র এবং সবার জন্য উন্মুক্ত। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস মুক্তচিন্তা চর্চা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার স্থানও বটে। তবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থীর তুলনায় বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের আয়তন আকারে ছোট।

এমতাবস্থায় ক্লাস চলার সময় অর্থাৎ সকাল ৮টা হতে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দর্শনার্থী, বর্তমানে ছাত্র নয় এমন ব্যক্তি এবং যাদের দাফতরিক কাজ নেই তাদেরকে ক্যাম্পাসে না আসার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

এর আগে বুধবার রাত সাড়ে ১০টার পর সাধারণ শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ নিষিদ্ধ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। মাদকসেবন, ছিনতাই এবং চাঁদাবাজি বেড়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান।

জানা গেছে, দেশের ব্যবসায়িক প্রাণকেন্দ্র পুরান ঢাকায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থিত হওয়ায় বিভিন্ন বহিরাগতদের আনাগোনা, পোগোজ স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকদের অবাধ বিচরণ ও সদরঘাট বিভিন্ন লোকের ভিড় আর সাবেক ছাত্রদের অপরাজনীতির কারণে নিয়মিত ছাত্র ছাড়া ক্যাম্পাস চলাকালীন ছাত্র নয় এমন কেউ প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা করেছে জবি প্রশাসন।

এ বিষয়ে জবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, বর্তমানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে ও তাদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত