দাবি মানল শাবি প্রশাসন: আন্দোলন স্থগিত শিক্ষার্থীদের
jugantor
দাবি মানল শাবি প্রশাসন: আন্দোলন স্থগিত শিক্ষার্থীদের

  শাবি প্রতিনিধি  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৪৮:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

দাবি মেনে নেয়ায় শিক্ষার্থীদের আনন্দ মিছিল
দাবি মেনে নেয়ায় শিক্ষার্থীদের আনন্দ মিছিল

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দাবি মেনে নেয়ায় রোববার আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

বছরের ৩৬৫ দিন হল খোলা রাখা, ক্যাম্পাসে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিতকরণসহ বিভিন্ন দাবিতে ক্যাম্পাসে ১৮ দিন ধরে আন্দোলনে ছিল শিক্ষার্থীরা।

লিখিত বক্তব্যের মাধ্যমে রোববার দুপুরে বেশির ভাগ দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম।

এরপর আন্দোলন স্থগিত করে ক্যাম্পাসে বিজয় মিছিল করে আন্দোলনকারীরা।

এর আগে রোববার সকাল ১০টা থেকে আন্দোলনকারী শিক্ষর্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। দুপুর ২টার মধ্যে দাবি না মানলে ক্যাম্পাসে সর্বাত্মক অবরোধের ডাক দেয় আন্দোলনকারীরা। দেড়টায় দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা আসে।

লিখিত বক্তব্যে কোষাধ্যক্ষ বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি অনুযায়ী, বছরে ৩৬৫ দিনই হল খোলা রাখা (রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তাচজনিত কারণে জরুরি সিদ্ধান্ত এর বাইরে) হবে। সমাবর্তনে ৫-৮ জানুয়ারি হল বন্ধ না রেখে শুধু ৮ তারিখ নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত হল বন্ধ রাখার বিষয়ে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা সংস্থার সঙ্গে কথা বলা হবে।

অন্য দাবিগুলোর মধ্যে ছাত্রীদের হলে প্রবেশের সময়সীমা রাত ১০.১৫ করা, রোড পেইন্টিং থেকে শুরু করে যে কোনো ধরনের কার্যক্রম অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অনুমোদন দেয়া, লাইব্রেরি রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখা, ক্যাফেটেরিয়ার মান বাড়িয়ে দাম কমানো, টংগুলোতে স্বাস্থ্যকর খাবার রাখা, আইআইসিটি ও পরিসংখ্যান বিভাগের কক্ষ বরাদ্দের ক্ষেত্রে অর্থ না নেয়ার বিষয়ে অনুরোধ করা ইত্যাদি।

শিক্ষার্থীদের দীর্ঘমেয়াদি দাবিগুলোও বাস্তবায়নে প্রশাসন কাজ করবে বলে জানান কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সিদ্ধান্তগুলোকে স্বাগত জানিয়েছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। আন্দোলন স্থগিত করে ক্যাম্পাসে বিজয় মিছিল বের করে তারা।

শাবিতে তৃতীয় সমাবর্তনকালীন ও শীতকালীন ছুটিতে আবাসিক হল খোলা রাখার দাবিতে ২০ নভেম্বর থেকে আন্দোলন করে আসছিল শিক্ষার্থীরা। প্রথমদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমদ বাধা দিলে আন্দোলন আরও বেগবান হয়।

দাবি মানল শাবি প্রশাসন: আন্দোলন স্থগিত শিক্ষার্থীদের

 শাবি প্রতিনিধি 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দাবি মেনে নেয়ায় শিক্ষার্থীদের আনন্দ মিছিল
দাবি মেনে নেয়ায় শিক্ষার্থীদের আনন্দ মিছিল

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দাবি মেনে নেয়ায় রোববার আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

বছরের ৩৬৫ দিন হল খোলা রাখা, ক্যাম্পাসে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিতকরণসহ বিভিন্ন দাবিতে ক্যাম্পাসে ১৮ দিন ধরে আন্দোলনে ছিল শিক্ষার্থীরা।

লিখিত বক্তব্যের মাধ্যমে রোববার দুপুরে বেশির ভাগ দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম।

এরপর আন্দোলন স্থগিত করে ক্যাম্পাসে বিজয় মিছিল করে আন্দোলনকারীরা।

এর আগে রোববার সকাল ১০টা থেকে আন্দোলনকারী শিক্ষর্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। দুপুর ২টার মধ্যে দাবি না মানলে ক্যাম্পাসে সর্বাত্মক অবরোধের ডাক দেয় আন্দোলনকারীরা। দেড়টায় দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা আসে।

লিখিত বক্তব্যে কোষাধ্যক্ষ বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি অনুযায়ী, বছরে ৩৬৫ দিনই হল খোলা রাখা (রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তাচজনিত কারণে জরুরি সিদ্ধান্ত এর বাইরে) হবে। সমাবর্তনে ৫-৮ জানুয়ারি হল বন্ধ না রেখে শুধু ৮ তারিখ নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত হল বন্ধ রাখার বিষয়ে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা সংস্থার সঙ্গে কথা বলা হবে।

অন্য দাবিগুলোর মধ্যে ছাত্রীদের হলে প্রবেশের সময়সীমা রাত ১০.১৫ করা, রোড পেইন্টিং থেকে শুরু করে যে কোনো ধরনের কার্যক্রম অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অনুমোদন দেয়া, লাইব্রেরি রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখা, ক্যাফেটেরিয়ার মান বাড়িয়ে দাম কমানো, টংগুলোতে স্বাস্থ্যকর খাবার রাখা, আইআইসিটি ও পরিসংখ্যান বিভাগের কক্ষ বরাদ্দের ক্ষেত্রে অর্থ না নেয়ার বিষয়ে অনুরোধ করা ইত্যাদি।

শিক্ষার্থীদের দীর্ঘমেয়াদি দাবিগুলোও বাস্তবায়নে প্রশাসন কাজ করবে বলে জানান কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সিদ্ধান্তগুলোকে স্বাগত জানিয়েছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। আন্দোলন স্থগিত করে ক্যাম্পাসে বিজয় মিছিল বের করে তারা।

শাবিতে তৃতীয় সমাবর্তনকালীন ও শীতকালীন ছুটিতে আবাসিক হল খোলা রাখার দাবিতে ২০ নভেম্বর থেকে আন্দোলন করে আসছিল শিক্ষার্থীরা। প্রথমদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমদ বাধা দিলে আন্দোলন আরও বেগবান হয়।