সিকৃবিতে ফের ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষ চলছে
jugantor
সিকৃবিতে ফের ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষ চলছে

  সিলেট ব্যুরো  

২৯ জানুয়ারি ২০২০, ০৩:৩১:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিকৃবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ফের সংর্ঘষ শুরু হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএম কিবরিয়া হল ও বঙ্গবন্ধু হলের ছাত্রদের মধ্যে রাত ১টা থেকে এ সংর্ঘষ চলছে বলে জানা গেছে।

সংর্ঘষে বেশ কয়েক গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদেরকে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরান থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজসংলগ্ন গেট এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নবীন শিক্ষার্থীদের গ্রুপে ভেড়ানো নিয়ে সিকৃবির অছাত্র ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর ও বর্তমান ছাত্রলীগ নেতা শরিফ গ্রুপের মধ্যে সংর্ঘষ বাঁধে বলে জানিয়েছে একটি সূত্র।

ওই সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হন। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতারা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বরত প্রক্টরিয়াল বডি ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল ১০টার দিকে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ সংলগ্ন গেইট এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে প্রথমে বাকবিতন্ডা ঘটে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাঁশ ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন ছাত্ররা। এতে ১০-১২ জন ছাত্র আহত হন। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠানোর পর সেখানেও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে তারা। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বরত চিকিৎসক। তবে আহতদের কারো অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় বলে জানা গেছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাস এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

সিকৃবিতে ফের ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষ চলছে

 সিলেট ব্যুরো 
২৯ জানুয়ারি ২০২০, ০৩:৩১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিকৃবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ফের সংর্ঘষ শুরু হয়েছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএম কিবরিয়া হল ও বঙ্গবন্ধু হলের ছাত্রদের মধ্যে রাত ১টা থেকে এ সংর্ঘষ চলছে বলে জানা গেছে।

সংর্ঘষে বেশ কয়েক গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদেরকে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরান থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজসংলগ্ন গেট এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।  

নবীন শিক্ষার্থীদের গ্রুপে ভেড়ানো নিয়ে সিকৃবির অছাত্র ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর ও বর্তমান ছাত্রলীগ নেতা শরিফ গ্রুপের মধ্যে সংর্ঘষ বাঁধে বলে জানিয়েছে একটি সূত্র।

ওই সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হন। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতারা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বরত প্রক্টরিয়াল বডি ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল ১০টার দিকে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ সংলগ্ন গেইট এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে প্রথমে বাকবিতন্ডা ঘটে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাঁশ ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন ছাত্ররা। এতে ১০-১২ জন ছাত্র আহত হন। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠানোর পর সেখানেও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে তারা। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বরত চিকিৎসক। তবে আহতদের কারো অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় বলে জানা গেছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাস এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন