মধ্যরাতে জাবির হল লক্ষ্য করে গুলি!
jugantor
মধ্যরাতে জাবির হল লক্ষ্য করে গুলি!

  জাবি প্রতিনিধি  

০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২২:৫৫:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আ ফ ম কামালউদ্দিন হল লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়েছে এক মোটরসাইকেল আরোহী।

রোববার রাত ২টার দিকে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির আবাসিক হলকে লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ার ঘটনা ঘটে। তবে কে বা করা গুলিটি ছুঁড়েছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘গুলি ছোঁড়ার ঘটনা শুনেছি। এখনও পর্যন্ত জড়িত কাউকে শনাক্ত করা যায়নি। এ বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে আলোচনা করেছি। আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করছি।’

এ দিকে এ ঘটনার প্রেক্ষিতে নিরাপত্তা চেয়ে সোমবার দুপুরে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এর কিছু পর সভাপতির বিদ্রোহী সাত হলের নেতারা ভিসির সঙ্গে দেখা করেন। সেখানে সভাপতি ও বিদ্রোহীরা গুলি ছোঁড়ার ঘটনায় উভয় পক্ষকেই দোষারোপ করতে থাকেন বলে জানিয়েছেন সেখানে উপস্থিত একাধিক নেতা।

এ দিকে ক্যাম্পাসের এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ জাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মঙ্গলবার দেখা করতে বলেছেন বলে জানিয়েছেন শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তারেক হাসান। তিনি বলেন, এ মাসের মধ্যে শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠনের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

উল্লেখ্য, শাখা ছাত্রলীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে দুই বছর আগে। সাধারণ সম্পাদক ৬ মাস আগে ক্যাম্পাস ছেড়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে নতুন কমিটি ও বর্তমান সভাপতি মো. জুয়েল রানার অব্যাহতি চেয়ে বিদ্রোহ করছেন সভাপতির নিজের হল বাদে ছেলেদের বাকি ৭ হলের নেতাকর্মীরা।

মধ্যরাতে জাবির হল লক্ষ্য করে গুলি!

 জাবি প্রতিনিধি 
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আ ফ ম কামালউদ্দিন হল লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়েছে এক মোটরসাইকেল আরোহী।

রোববার রাত ২টার দিকে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির আবাসিক হলকে লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ার ঘটনা ঘটে। তবে কে বা করা গুলিটি ছুঁড়েছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘গুলি ছোঁড়ার ঘটনা শুনেছি। এখনও পর্যন্ত জড়িত কাউকে শনাক্ত করা যায়নি। এ বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে আলোচনা করেছি। আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করছি।’

এ দিকে এ ঘটনার প্রেক্ষিতে নিরাপত্তা চেয়ে সোমবার দুপুরে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এর কিছু পর সভাপতির বিদ্রোহী সাত হলের নেতারা ভিসির সঙ্গে দেখা করেন। সেখানে সভাপতি ও বিদ্রোহীরা গুলি ছোঁড়ার ঘটনায় উভয় পক্ষকেই দোষারোপ করতে থাকেন বলে জানিয়েছেন সেখানে উপস্থিত একাধিক নেতা।

এ দিকে ক্যাম্পাসের এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ জাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মঙ্গলবার দেখা করতে বলেছেন বলে জানিয়েছেন শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তারেক হাসান। তিনি বলেন, এ মাসের মধ্যে শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠনের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

উল্লেখ্য, শাখা ছাত্রলীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে দুই বছর আগে। সাধারণ সম্পাদক ৬ মাস আগে ক্যাম্পাস ছেড়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে নতুন কমিটি ও বর্তমান সভাপতি মো. জুয়েল রানার অব্যাহতি চেয়ে বিদ্রোহ করছেন সভাপতির নিজের হল বাদে ছেলেদের বাকি ৭ হলের নেতাকর্মীরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন