শেকৃবির হল থেকে ছাত্রলীগ নেতার বিছানাপত্র ফেলে দিল কর্মীরা
jugantor
শেকৃবির হল থেকে ছাত্রলীগ নেতার বিছানাপত্র ফেলে দিল কর্মীরা

  শেকৃবি প্রতিনিধি  

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:২৬:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও প্রোগ্রামে যাওয়াকে কেন্দ্র করে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিত হল থেকে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রিয়ন সরকারের বিছানাপত্র ফেলে দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর প্রোগ্রামে যাওয়াকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রোগ্রামে আগেভাগেই চলে গেলে ক্ষুব্ধ হয়ে কিছু কর্মী এসে শেরেবাংলা হলের ৩১২ নম্বর রুম থেকে বিছানাপত্র ফেলে দিয়ে যায়।

শেকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম মাসুদুর রহমান মিঠু বলেন, সভাপতিকে না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রোগ্রামে নেতাকর্মীদের নিয়ে আগেই চলে গেছে। ইতিপূর্বে সে অনেকবার নিয়মশৃংখলা ভঙ্গ করেছে। এমনকি বিশৃংখলা সৃষ্টির অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

ফলে নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে হয়তো বা এ কাজটি করেছে। তবে কে বা কারা করেছে সে ব্যাপারে আমি কিছু জানি না।

এ ব্যাপারে রিয়নের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

রুমে থাকা এক রুমমেট যুগান্তরকে জানান, ছাত্রলীগের শনিবারের প্রোগ্রামে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরে তাদের মধ্যে অন্তর্কোন্দলে কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী এসে রুম থেকে বিছানাপত্র বাইরের বারান্দায় ফেলে দিয়ে যায়। তবে এ ব্যাপারে আমরা বেশি কিছু জানি না।

শেকৃবির হল থেকে ছাত্রলীগ নেতার বিছানাপত্র ফেলে দিল কর্মীরা

 শেকৃবি প্রতিনিধি 
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। ছবি: সংগৃহীত

অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও প্রোগ্রামে যাওয়াকে কেন্দ্র করে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিত হল থেকে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রিয়ন সরকারের বিছানাপত্র ফেলে দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর প্রোগ্রামে যাওয়াকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। 

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রোগ্রামে আগেভাগেই চলে গেলে ক্ষুব্ধ হয়ে কিছু কর্মী এসে শেরেবাংলা হলের ৩১২ নম্বর রুম থেকে বিছানাপত্র ফেলে দিয়ে যায়। 

শেকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম মাসুদুর রহমান মিঠু বলেন, সভাপতিকে না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রোগ্রামে নেতাকর্মীদের নিয়ে আগেই চলে গেছে। ইতিপূর্বে সে অনেকবার নিয়মশৃংখলা ভঙ্গ করেছে। এমনকি বিশৃংখলা সৃষ্টির অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। 

ফলে নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে হয়তো বা এ কাজটি করেছে। তবে কে বা কারা করেছে সে ব্যাপারে আমি কিছু জানি না।

এ ব্যাপারে রিয়নের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। 

রুমে থাকা এক রুমমেট যুগান্তরকে জানান, ছাত্রলীগের শনিবারের প্রোগ্রামে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরে তাদের মধ্যে অন্তর্কোন্দলে কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী এসে রুম থেকে বিছানাপত্র বাইরের বারান্দায় ফেলে দিয়ে যায়। তবে এ ব্যাপারে আমরা বেশি কিছু জানি না। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন