স্ত্রীর মামলায় শাবি অধ্যাপক গ্রেফতার
jugantor
স্ত্রীর মামলায় শাবি অধ্যাপক গ্রেফতার

  শাবি প্রতিনিধি  

১৬ মার্চ ২০২০, ১৩:৫৮:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

স্ত্রীর মামলায় শাবি অধ্যাপক গ্রেফতার

স্ত্রীর মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান।

শনিবার তাকে গ্রেফতার করে লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ। পরে তাকে কোর্টে পাঠানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি জসীম উদ্দিন।

এ বিষয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি জসীম উদ্দিন বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের আওতায় অভিযুক্তের স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় ওয়ারেন্টের আসামি হিসেবে শনিবার রাতে নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ড. মোস্তাফিজুর রহমানের স্ত্রী জানান, ‘২০১৭ সালে আমাদের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন পর থেকে প্রতিনিয়ত শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে আমার স্বামী। আমরা বিষয়টি সমাধানের জন্য পারিবারিকভাবে বসি। তার পরও সমাধান হয়নি।

এমনকি একপর্যায়ে যোগাযোগও বন্ধ করে সে। এ ছাড়া একাধিকবার সিলেটে এসেও তার দেখা পাইনি।’

উল্লেখ্য, পরে বাধ্য হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১/গ ধারায় এ বছরের ফেব্রুয়ারির ১০ তারিখে শাবির এ শিক্ষকের বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুর চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা করেন তার স্ত্রী।

স্ত্রীর মামলায় শাবি অধ্যাপক গ্রেফতার

 শাবি প্রতিনিধি 
১৬ মার্চ ২০২০, ০১:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
স্ত্রীর মামলায় শাবি অধ্যাপক গ্রেফতার
শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান। ছবি: সংগৃহীত

স্ত্রীর মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান।

শনিবার তাকে গ্রেফতার করে লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ। পরে তাকে কোর্টে পাঠানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি জসীম উদ্দিন।

এ বিষয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি জসীম উদ্দিন বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের আওতায় অভিযুক্তের স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় ওয়ারেন্টের আসামি হিসেবে শনিবার রাতে নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ড. মোস্তাফিজুর রহমানের স্ত্রী জানান,  ‘২০১৭ সালে আমাদের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন পর থেকে প্রতিনিয়ত শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে আমার স্বামী। আমরা বিষয়টি সমাধানের জন্য পারিবারিকভাবে বসি। তার পরও সমাধান হয়নি।

এমনকি একপর্যায়ে যোগাযোগও বন্ধ করে সে। এ ছাড়া একাধিকবার সিলেটে এসেও তার দেখা পাইনি।’

উল্লেখ্য, পরে বাধ্য হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১/গ ধারায় এ বছরের ফেব্রুয়ারির ১০ তারিখে শাবির এ শিক্ষকের বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুর চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা করেন তার স্ত্রী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন