শাবি শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে আইসিটি মামলা প্রত্যাহার চান ছাত্রলীগ নেতা
jugantor
শাবি শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে আইসিটি মামলা প্রত্যাহার চান ছাত্রলীগ নেতা

  শাবি প্রতিনিধি  

১৯ জুন ২০২০, ২১:২৩:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ইমরান খান

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) শিক্ষার্থী মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রশাসনের করা মামলা ‘মানবিক’ বিবেচনায় প্রত্যাহার চান শাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান।

এর আগে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে কটূক্তির অভিযোগে গত ১৫ জুন মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বেশ বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

শাবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান যুগান্তরকে জানান, ‘মাহির চৌধুরীর দেয়া স্ট্যাটাসটি অত্যন্ত নিন্দনীয়। কিন্তু সে যেহেতু নিজের ভুল বুঝতে পেরে বেশ কয়েকবার ক্ষমাও চেয়েছে, ‘মানবিক’ দিক বিবেচনায় প্রশাসন তাকে ক্ষমা করে দেয়া উচিত।

যদিও ইমরান খানের বক্তব্যকে সংগঠনের নয়, নিজের ‘ব্যক্তিগত’ বলে এ বিষয়ে আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি শাবি ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ রুহুল আমিন।

এ দিকে মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে ‘হয়রানিমূলক’ এ মামলা দ্রুত প্রত্যাহার ও প্রাতিষ্ঠানিক ক্ষমা প্রার্থনার পাশাপাশি ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮’ বাতিলেরও দাবি জানিয়েছেন তারা। এ দাবি জানিয়ে গণমাধ্যমে বিবৃতি প্রদান করেছে ‘শিক্ষার্থীবান্ধব শাবিপ্রবি’ ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী’ নামের দুটি প্লাটফর্ম। বুধবার গণমাধ্যমে প্রেরিত আলাদা দুটি বিবৃতিতে তারা বর্তমান ১১২০ জন শিক্ষার্থী ও সাবেক ২৮৬ জন শিক্ষার্থীর স্বাক্ষরও সংযুক্ত করে দেয়।

উল্লেখ্য, শনিবার বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্ট দেন মাহির। পরে ঐ পোস্টটি দেখে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ জানালে ‘বক্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে’ জানিয়ে পোস্টটি মুছে ফেলেন মাহির ও পরবর্তীকালে বেশ কয়েকবার এ নিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এরপর মাহিরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন জানিয়েছিলেন, ‘মাহির চৌধুরী মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে অসত্য তথ্য দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছে যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়েছেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়কে অবহিত করলে আমরা মামলা করি।’

শাবি শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে আইসিটি মামলা প্রত্যাহার চান ছাত্রলীগ নেতা

 শাবি প্রতিনিধি 
১৯ জুন ২০২০, ০৯:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইমরান খান
ইমরান খান। ফাইল ছবি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) শিক্ষার্থী মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রশাসনের করা মামলা ‘মানবিক’ বিবেচনায় প্রত্যাহার চান শাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান।

এর আগে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে কটূক্তির অভিযোগে গত ১৫ জুন মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বেশ বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

শাবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান যুগান্তরকে জানান, ‘মাহির চৌধুরীর দেয়া স্ট্যাটাসটি অত্যন্ত নিন্দনীয়। কিন্তু সে যেহেতু নিজের ভুল বুঝতে পেরে বেশ কয়েকবার ক্ষমাও চেয়েছে, ‘মানবিক’ দিক বিবেচনায় প্রশাসন তাকে ক্ষমা করে দেয়া উচিত। 

যদিও ইমরান খানের বক্তব্যকে সংগঠনের নয়, নিজের ‘ব্যক্তিগত’ বলে এ বিষয়ে আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি শাবি ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ রুহুল আমিন।

এ দিকে মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে ‘হয়রানিমূলক’ এ মামলা দ্রুত প্রত্যাহার ও প্রাতিষ্ঠানিক ক্ষমা প্রার্থনার পাশাপাশি ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮’ বাতিলেরও দাবি জানিয়েছেন তারা। এ দাবি জানিয়ে গণমাধ্যমে বিবৃতি প্রদান করেছে ‘শিক্ষার্থীবান্ধব শাবিপ্রবি’ ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী’ নামের দুটি প্লাটফর্ম। বুধবার গণমাধ্যমে প্রেরিত আলাদা দুটি বিবৃতিতে তারা বর্তমান ১১২০ জন শিক্ষার্থী ও সাবেক ২৮৬ জন শিক্ষার্থীর স্বাক্ষরও সংযুক্ত করে দেয়।

উল্লেখ্য, শনিবার বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্ট দেন মাহির। পরে ঐ পোস্টটি দেখে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ জানালে ‘বক্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে’ জানিয়ে পোস্টটি মুছে ফেলেন মাহির ও পরবর্তীকালে বেশ কয়েকবার এ নিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এরপর মাহিরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন জানিয়েছিলেন, ‘মাহির চৌধুরী মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে অসত্য তথ্য দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছে যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়েছেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়কে অবহিত করলে আমরা মামলা করি।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন