ইবির নতুন ভিসি ঢাবির প্রফেসর আবদুস সালাম
jugantor
ইবির নতুন ভিসি ঢাবির প্রফেসর আবদুস সালাম

  ইবি প্রতিনিধি  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৬:৫৩:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ১৩তম ভিসি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম। আগামী ৪ বছরের জন্য তাকে এ দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ভিসি পদ শূন্য হওয়ার ৩৯ দিন পর বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ভিসি নিয়োগ দেয়া হল।

মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা আফরোজ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে- রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলরের অনুমোদনক্রমে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় আইন-১৯৮০ এর ১০(১) ধারা অনুসারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক (অবসরপ্রাপ্ত) ড. শেখ আবদুস সালামকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর পদে নিয়োগ করা হয়েছে।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বক্ষণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করবেন। রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজনে যে কোনো সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন।

তবে এখনও বিশ্ববিদ্যালয়ে ফ্যাক্স বার্তা এসে পৌঁছেনি বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এসএম আবদুল লতিফ।

প্রসঙ্গত, গত ২১ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও ট্রেজারারের মেয়াদ পূর্ণ হয়। এরপর থেকে পদ দুটি শূন্য ছিল। ট্রেজারার পদে নতুন কাউকে নিয়োগ না দেয়ায় পদটি এখনও শূন্য রয়েছে।

ইবির নতুন ভিসি ঢাবির প্রফেসর আবদুস সালাম

 ইবি প্রতিনিধি 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ১৩তম ভিসি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম। আগামী ৪ বছরের জন্য তাকে এ দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ভিসি পদ শূন্য হওয়ার ৩৯ দিন পর বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ভিসি নিয়োগ দেয়া হল।

মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা আফরোজ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে- রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলরের অনুমোদনক্রমে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় আইন-১৯৮০ এর ১০(১) ধারা অনুসারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক (অবসরপ্রাপ্ত) ড. শেখ আবদুস সালামকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর পদে নিয়োগ করা হয়েছে।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বক্ষণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করবেন। রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজনে যে কোনো সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন।

তবে এখনও বিশ্ববিদ্যালয়ে ফ্যাক্স বার্তা এসে পৌঁছেনি বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এসএম আবদুল লতিফ।

প্রসঙ্গত, গত ২১ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও ট্রেজারারের মেয়াদ পূর্ণ হয়। এরপর থেকে পদ দুটি শূন্য ছিল। ট্রেজারার পদে নতুন কাউকে নিয়োগ না দেয়ায় পদটি এখনও শূন্য রয়েছে।