আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় ছাত্রদল নেতাকে আটক
jugantor
আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় ছাত্রদল নেতাকে আটক

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ১৯:৫৫:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

দুর্নীতির অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের অপসারণ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রদল।

মিছিলে আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় এক নেতাকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে থেকে শুরু হয় মিছিলটি। মিছিল থেকে রফিকুল ইসলাম নামে এক ছাত্রদল নেতাকে আটক করা হয়। আটক রফিকুল ইসলাম নগরীর মতিহার থানা উত্তর ছাত্রদলের আহ্বায়ক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে থেকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল। মিছিলটি কাজলা এলাকায় পৌঁছলে পুলিশ তাদের ধাওয়া দেয়। এ সময় মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে ধাওয়া করে এক ছাত্রদল নেতাকে আটক করে পুলিশ।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতান আহমেদ বলেন, উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠায় তার অপসারণ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে আমরা বিক্ষোভ মিছিল করি। কাজলা গেটের কাছাকাছি পৌঁছলে পুলিশ আমাদের মিছিলের ওপর হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

মিছিল থেকে আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানার ওসি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, পুলিশের গাড়ি দেখে পালানোর সময় তার আচরণ সন্দেহজনক মনে হয়েছে তাই আটক করা হয়েছে।

এর আগে গত ২০ ও ২১ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়।

অন্যদিকে গত শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের সাবেক শিক্ষার্থী মো. মোস্তাফিজকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারে শিমুলতলা এলাকায় ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়।

আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় ছাত্রদল নেতাকে আটক

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দুর্নীতির অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের অপসারণ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রদল। 

মিছিলে আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় এক নেতাকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে থেকে শুরু হয় মিছিলটি। মিছিল থেকে রফিকুল ইসলাম নামে এক ছাত্রদল নেতাকে আটক করা হয়। আটক রফিকুল ইসলাম নগরীর মতিহার থানা উত্তর ছাত্রদলের আহ্বায়ক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে থেকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল। মিছিলটি কাজলা এলাকায় পৌঁছলে পুলিশ তাদের ধাওয়া দেয়। এ সময় মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে ধাওয়া করে এক ছাত্রদল নেতাকে আটক করে পুলিশ। 

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতান আহমেদ বলেন, উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠায় তার অপসারণ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে আমরা বিক্ষোভ মিছিল করি। কাজলা গেটের কাছাকাছি পৌঁছলে পুলিশ আমাদের মিছিলের ওপর হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

মিছিল থেকে আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানার ওসি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, পুলিশের গাড়ি দেখে পালানোর সময় তার আচরণ সন্দেহজনক মনে হয়েছে তাই আটক করা হয়েছে। 

এর আগে গত ২০ ও ২১ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়।

অন্যদিকে গত শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের সাবেক শিক্ষার্থী মো. মোস্তাফিজকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারে শিমুলতলা এলাকায় ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়।