কোটা সংস্কার নিয়ে যবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

প্রকাশ : ০৯ এপ্রিল ২০১৮, ২২:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

  যশোর ব্যুরো

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদ ভবনের সামনে থেকে মিছিলটি বের হয়। প্রধান ফটকের সামনে বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষার্থীরা সমাবেত হয়। একপর্যায়ে স্বাধীনতা সড়ক (যশোর-চৌগাছা) অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে শিক্ষার্থীরা। এতে ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায় এতে চরম দুর্ভোগে পড়েন যাত্রীরা।

বিক্ষোভ চলাকালে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তুষার আলমগীর, রাসেল আজাদ, মৃন্ময় কুমার শীল, ফারহানা রুম্পা, মোহাম্মদ রাব্বানী।

বক্তারা বলেন, কোটা সংস্কার সময়ের দাবি। কোটার কারণে মেধাবী সাধারণ শিক্ষার্থীরা চরম বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সবচেয়ে বড় বাধা কোটা। ভর্তি ও চাকরি দুই ক্ষেত্রে কোটা প্রথা চালু থাকায় মেধাবীরা বারবার বঞ্চিত হচ্ছে। মেধাবীদের বঞ্চিত করে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়া সম্ভব নয়। শতকরা ৫৬ শতাংশ কোটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

যবিপ্রবিতে আন্দোলনকারীদের অন্যতম তুষার আলমগীর বলেন, ঢাকার আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করে যবিপ্রবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। ঢাকায় পরবর্তী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা কর্মসূচি পালন করব।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের বাসভবনে রোববার মধ্যরাতে যে তাণ্ডব ও ভাঙচুর করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।

তিনি বলেন, মধ্যরাতে এই ধরনের বর্বরোচিত হামলা কোনো শিক্ষার্থী করতে পারে না। প্রকৃতপক্ষে বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার শান্তির বদ্বীপ হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করতেই উপাচার্যের বাসভবনে এ ধরনের হামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

যবিপ্রবি জনসংযোগ কর্মকর্তা আবদুর রশিদ প্রেরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।