রুয়েটে বাসচালক হত্যাকাণ্ডে ধর্মঘট অব্যাহত

  রাবি প্রতিনিধি ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ২২:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

রুয়েট

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) বাসচালক আব্দুস সালাম হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কর্মচারীদের অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট চলছে। জড়িতদের দ্রুত শনাক্ত করে গ্রেফতারসহ তিন দফা দাবিতে তারা এ কর্মসূচি পালন করছেন।

বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীরা অফিস বর্জন করে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের শহরগামী কোনো বাসও ক্যাম্পাস ছেড়ে যায়নি।

মঙ্গলবার সকালে আন্দোলনকারীরা বাসচালক আবদুস সালাম হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার করতে প্রশাসনকে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেন। তাদের বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে না পারায় কর্মচারীরা বুধবারও ধর্মঘট কর্মসূচি অব্যাহত রাখেন।

এ ছাড়া আন্দোলনকারীরা ৩ দফা দাবি জানান। দাবিগুলো হলো- সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার সদস্যদের সরিয়ে নতুন গার্ড নিয়োগ এবং ক্যাম্পাসজুড়ে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশদ্বার ও ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা জোরদার ও পুরো ক্যাম্পাস সিসিটিভি ক্যামেরায় তদারকির আওতায় নিয়ে আসা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বুধবার বেলা ১১টার দিকে রুয়েটের প্রশাসন ভবনের সামনে থেকে মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি প্রধান ফটক দিয়ে তালাইমারী মোড় হয়ে ফের প্রধান ফটকের সামনে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। সমাবেশে আন্দোলনকারীরা আবদুস সালামের হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও মামলার অগ্রগতির বিষয়ে পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সুনির্দিষ্ট বক্তব্যের দাবি জানান। বেলা ১২টার দিকে সেখানে পুলিশ গিয়ে তাদের ক্যাম্পাসে ঢুকিয়ে দেয়। পরে তারা প্রশাসন ভবনের সামনে সমাবেশ করে।

সমাবেশে কর্মচারী সমিতির সভাপতি মহিদুল ইসলাম মোস্তাফা বলেন, হত্যাকাণ্ডের ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার ও মামলার ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কিছু জানাতে পারেনি।

সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দিন বলেন, রুয়েট ক্যাম্পাস অরক্ষিত এলাকা। বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গায় খুনিরা হত্যা করে পালিয়ে গেছে। এটা প্রমাণ করে ক্যাম্পাসে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মচারীরা মারাত্মক নিরাপত্তা সংকটে রয়েছেন। বহিরাগতরা অনায়াসে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে নানা অপকর্ম সংঘটিত করে। সবার নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাম্পাসের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যাপক জোরদার করতে হবে।

মামলার অগ্রগতি বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানার ওসি শাহাদাত হোসেন খান বলেন, মামলার তদন্তের বিষয়ে আমার কাছে তথ্য নেই।

মতিহার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম অসুস্থ বলে কথা বলতে চাননি।

ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার ব্যাপারে উপাচার্য অধ্যাপক মোহা. রফিকুল আলম বেগ বলেন, কর্মচারীদের দাবিগুলো যৌক্তিক। ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা নিশ্চিতের বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter