আবরারের ‘খুনি’ বিটুর ক্লাসে ফেরা: বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ৭ দিন স্থগিত
jugantor
আবরারের ‘খুনি’ বিটুর ক্লাসে ফেরা: বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ৭ দিন স্থগিত

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৯ মে ২০২১, ১৩:৪৩:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় আজীবন বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা আশিকুল ইসলাম বিটুর ক্লাসে ফেরার প্রতিবাদে ডাকা আন্দোলন এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ফেসবুক পেজে (বুয়েটিয়ান) এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, বুয়েট প্রশাসনের আশ্বাসে আগামী সপ্তাহের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে এর মধ্যেই বুয়েট প্রশাসন তাদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করবে। অন্যথায় আগামী সপ্তাহের পর সাধারণ শিক্ষার্থীদের মতামতের ভিত্তিতে আবারও কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

আবরার ফাহাদ হত্যার বিষয়ে শিক্ষার্থীরা কোনো আপস করবে না বলেও উল্লেখ করেন তারা।

গত ২২ মে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অনলাইন ক্লাসে যোগদান করেন আশিকুল ইসলাম বিটু। কিন্তু শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদের মুখে তিনি আর ক্লাস করতে পারেননি।

পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আদালতের স্টে অর্ডার নিয়ে বিটু চলমান টার্মের চারটি কোর্সে রেজিস্ট্রেশন করেছেন।

বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর বিক্ষোভে ফেটে পড়েন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় বিটুকে পুনরায় স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ২৯ মে পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন শিক্ষার্থীরা। তা না হলে ৩০ মে থেকে ক্লাস বর্জনের আলটিমেটাম দেন তারা।

এছাড়া বিটুর ক্লাসে ফেরার প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার বুয়েট ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বুয়েটের একাডেমিক কার্যক্রম হতে আজীবন বহিষ্কৃত ছাত্রের রিট পিটিশনের বিরুদ্ধে আপিল দায়েরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। আপিল দায়ের প্রক্রিয়াধীন আছে, যা আগামী সপ্তাহের মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

আবরারের ‘খুনি’ বিটুর ক্লাসে ফেরা: বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ৭ দিন স্থগিত

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৯ মে ২০২১, ০১:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় আজীবন বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা আশিকুল ইসলাম বিটুর ক্লাসে ফেরার প্রতিবাদে ডাকা আন্দোলন এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে।  

শুক্রবার রাতে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ফেসবুক পেজে (বুয়েটিয়ান) এ তথ্য জানানো হয়েছে।  

এতে বলা হয়, বুয়েট প্রশাসনের আশ্বাসে আগামী সপ্তাহের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে এর মধ্যেই বুয়েট প্রশাসন তাদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করবে। অন্যথায় আগামী সপ্তাহের পর সাধারণ শিক্ষার্থীদের মতামতের ভিত্তিতে আবারও কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

আবরার ফাহাদ হত্যার বিষয়ে শিক্ষার্থীরা কোনো আপস করবে না বলেও উল্লেখ করেন তারা।

গত ২২ মে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অনলাইন ক্লাসে যোগদান করেন আশিকুল ইসলাম বিটু। কিন্তু শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদের মুখে তিনি আর ক্লাস করতে পারেননি। 

পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আদালতের স্টে অর্ডার নিয়ে বিটু চলমান টার্মের চারটি কোর্সে রেজিস্ট্রেশন করেছেন। 

বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর বিক্ষোভে ফেটে পড়েন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় বিটুকে পুনরায় স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ২৯ মে পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন শিক্ষার্থীরা। তা না হলে ৩০ মে থেকে ক্লাস বর্জনের আলটিমেটাম দেন তারা।

এছাড়া বিটুর ক্লাসে ফেরার প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার বুয়েট ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। 

এদিকে গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বুয়েটের একাডেমিক কার্যক্রম হতে আজীবন বহিষ্কৃত ছাত্রের রিট পিটিশনের বিরুদ্ধে আপিল দায়েরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

এ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। আপিল দায়ের প্রক্রিয়াধীন আছে, যা আগামী সপ্তাহের মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বুয়েট ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু