কুবি ছাত্রীর আট মাসে ১০ লাখ টাকা আয়ের গল্প
jugantor
কুবি ছাত্রীর আট মাসে ১০ লাখ টাকা আয়ের গল্প

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ জুন ২০২১, ১৫:৩৯:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বন্যা

ইসরাত জাহান বন্যা। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগের লেখাপড়া করেন। করোনা মহামারির সময়ে ইউটিউবে রান্নাবিষয়ক অনলাইন কোর্স চালু করে রীতিমতো সবাইকেচমকে দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, গত আট মাসে ১০ লাখ টাকার বেশি আয় করেছেন ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের এই শিক্ষার্থী।

মহামারীকালে কীভাবে বন্যা একজন সফল প্রশিক্ষক হয়ে বিপুল টাকাআয় করছেন পাঠকদের আজ সেই গল্প জানাবো।

করোনা মহামারির জন্য দীর্ঘদিন ধরে বন্যার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। তাই বাড়িতে অলস বসে না থেকে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে রান্নাবিষয়ক বিভিন্ন কোর্সশেখেন। এরপর নানারকমের চকলেট, আইসক্রিম ও কেক তৈরি করা শেখেন। একপর্যায়ে নিজেই প্রশিক্ষক হয়ে চালু করেন অনলাইনভিত্তিক কোর্স। এর মাধ্যমে গত বছরের অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত আয় করেছেন ১০ লাখ টাকা।

বর্তমানে বন্যা দেড় হাজার নারী-পুরুষকে চকলেট, মিষ্টি, কেক, আইসক্রিম, চাইনিজসহ বিভিন্ন রকম রিবিয়ানি, ড্রিংকস, কুকিজ বানানো শিখাচ্ছেন।

তার একটি ‘Treats For You’ নামে একটা ফেসবুক পেজ রয়েছে। এই পেজ থেকেই তিনি ক্লাস করান।

বন্যা জানান, লকডাউনের সময় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় তার লেখাপড়ার তেমন চাপ নেই। তাই বিভিন্ন মাধ্যম থেকে রান্নাবিষয়ক বিভিন্ন কোর্স শেখেন। অক্টোবরের দিকে ফেসবুকে পেজ খুলে অনলাইনে রান্নাবিষয়ক কোর্স করানোর ঘোষণা দেন।

তিনি আরও জানান, ক্লাস করার জন্য যারা টাকা দিয়েছিল, সেই টাকা দিয়ে উপকরণসামগ্রী কেনেন। এ ব্যবসায় তিনি এক টাকাও বিনিয়োগ করেননি। বরং ব্যবসার লাভ থেকে তিনি মূলধন বের করেছেন।

গত বছরের অক্টোবর থেকে এখন তার ১০ লাখ টাকার বেশি আয় হয়েছে বলে জানান এই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী।

কুবি ছাত্রীর আট মাসে ১০ লাখ টাকা আয়ের গল্প

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ জুন ২০২১, ০৩:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বন্যা
ইসরাত জাহান বন্যা। ছবি-সংগৃহীত

ইসরাত জাহান বন্যা। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগের লেখাপড়া করেন। করোনা মহামারির সময়ে ইউটিউবে রান্নাবিষয়ক অনলাইন কোর্স চালু করে রীতিমতো সবাইকে চমকে দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, গত আট মাসে ১০ লাখ টাকার বেশি আয় করেছেন ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের এই শিক্ষার্থী।

মহামারীকালে কীভাবে বন্যা একজন সফল প্রশিক্ষক হয়ে বিপুল টাকা আয় করছেন পাঠকদের আজ সেই গল্প জানাবো।  

করোনা মহামারির জন্য দীর্ঘদিন ধরে বন্যার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। তাই বাড়িতে অলস বসে না থেকে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে রান্নাবিষয়ক বিভিন্ন কোর্স শেখেন। এরপর নানা রকমের চকলেট, আইসক্রিম ও কেক তৈরি করা শেখেন। এক পর্যায়ে নিজেই প্রশিক্ষক হয়ে চালু করেন অনলাইনভিত্তিক কোর্স। এর মাধ্যমে গত বছরের অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত আয় করেছেন ১০ লাখ টাকা।

বর্তমানে বন্যা দেড় হাজার নারী-পুরুষকে চকলেট, মিষ্টি, কেক, আইসক্রিম, চাইনিজসহ বিভিন্ন রকম রিবিয়ানি, ড্রিংকস, কুকিজ বানানো শিখাচ্ছেন। 

তার একটি ‘Treats For You’ নামে একটা ফেসবুক পেজ রয়েছে। এই পেজ থেকেই তিনি ক্লাস করান। 

বন্যা জানান, লকডাউনের সময় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় তার লেখাপড়ার তেমন চাপ নেই। তাই বিভিন্ন মাধ্যম থেকে রান্নাবিষয়ক বিভিন্ন কোর্স  শেখেন। অক্টোবরের দিকে ফেসবুকে পেজ খুলে অনলাইনে রান্নাবিষয়ক কোর্স করানোর ঘোষণা দেন। 

তিনি আরও জানান, ক্লাস করার জন্য যারা টাকা দিয়েছিল, সেই টাকা দিয়ে উপকরণসামগ্রী কেনেন। এ ব্যবসায় তিনি এক টাকাও বিনিয়োগ করেননি। বরং ব্যবসার লাভ থেকে তিনি মূলধন বের করেছেন। 

গত বছরের অক্টোবর থেকে এখন তার ১০ লাখ টাকার বেশি আয় হয়েছে বলে জানান এই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন