তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন
jugantor
তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪৩:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন

করোনার কারণে দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর বন্ধের পর গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে স্কুল-কলেজ। খোলার আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছিলেন, ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে দিলেও শুরুতে একসঙ্গে সব শ্রেণির ক্লাস হবে না। ধাপে ধাপে বিভিন্ন শ্রেণির ক্লাস হবে।

স্কুল খোলার পর মাধ্যমিক স্তরের অষ্টম ও নবম শ্রেণি সপ্তাহে একদিন করে ক্লাস হচ্ছিল। পরে গত সোমবার থেকে সেটি বাড়িয়ে সপ্তাহে দুই দিন করা হয়। এবার প্রাথমিক স্তরের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন করে হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা একটি গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে করোনার কারণে দীর্ঘ ৫৪৪ দিন পর স্কুল-কলেজ খোলার পর চলতি বছরের ও আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। তবে শিশু শ্রেণি, নার্সারি এবং কেজি শ্রেণির মতো প্রাক্-প্রাথমিক স্তরের ক্লাস আপাতত বন্ধ রয়েছে।

এদিকে মাধ্যমিকে যেসব শ্রেণির শিক্ষার্থীরা যেদিন স্কুলে যাচ্ছে, সেদিন তাদের দুটি করে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। আর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হচ্ছে তিনটি করে ক্লাস।

তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন
ফাইল ছবি

করোনার কারণে দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর বন্ধের পর গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে স্কুল-কলেজ। খোলার আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছিলেন, ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে দিলেও শুরুতে একসঙ্গে সব শ্রেণির ক্লাস হবে না। ধাপে ধাপে বিভিন্ন শ্রেণির ক্লাস হবে। 

স্কুল খোলার পর মাধ্যমিক স্তরের অষ্টম ও নবম শ্রেণি সপ্তাহে একদিন করে ক্লাস হচ্ছিল।  পরে গত সোমবার থেকে সেটি বাড়িয়ে সপ্তাহে দুই দিন করা হয়। এবার প্রাথমিক স্তরের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন করে হবে। 

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা একটি গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে করোনার কারণে দীর্ঘ ৫৪৪ দিন পর স্কুল-কলেজ খোলার পর চলতি বছরের ও আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। তবে শিশু শ্রেণি, নার্সারি এবং কেজি শ্রেণির মতো প্রাক্-প্রাথমিক স্তরের ক্লাস আপাতত বন্ধ রয়েছে।

এদিকে মাধ্যমিকে যেসব শ্রেণির শিক্ষার্থীরা যেদিন স্কুলে যাচ্ছে, সেদিন তাদের দুটি করে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। আর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হচ্ছে তিনটি করে ক্লাস।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন