গবেষণাগার থেকে মুরগি চুরি!
jugantor
গবেষণাগার থেকে মুরগি চুরি!

  শেকৃবি প্রতিনিধি  

০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৪৪:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

কৃষিশিক্ষা ও গবেষণার অনন্য প্রতিষ্ঠান শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা গবেষণার সুযোগ পেলেও নিরাপত্তার অভাবে বারবার গবেষণার বস্তু চুরি হওয়ায় আগ্রহ হারাচ্ছেন তারা। বিভিন্ন সময়ে মাঠ থেকে বিভিন্ন গবেষণার ফসল চুরি হওয়ার অভিযোগ উঠলেও এবার পোলট্রি মুরগি চুরি হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

রোববার মাস্টাসের শিক্ষার্থীর করা চলমান গবেষণার পোলট্রি ফার্ম থেকে বেশ কিছু মুরগি ও ওষুধ চুরি হওয়ার অভিযোগ করেছেন। বিপুল মজুমদার ও নিতু সাহা নামের এ অভিযোগ করেন।

তারা বলেন, এর আগে এ গবেষণা শুরুর দিকে একবার চুরি হলে গত ২১ নভেম্বর আমরা প্রক্টর বরাবর নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য একটি আবেদন করি। কিন্তু প্রশাসন থেকে কোনো গুরুত্ব না দেওয়ায় ১৯ দিন পর আবারো গবেষণার মুরগি ও কিছু ওষুধ চুরি হয়ে গেল। নিজেদের টাকা খরচ করে গবেষণা করা জিনিসপত্র এভাবে বারবার চুরি হওয়ায় আমরা হতাশ। তবে পরবর্তীতে যেন এভাবে আর চুরি করতে না পারে সেই ব্যপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এর আগে গত বছর জানুয়ারি ও মার্চ মাসে মাঠ থেকে গবেষণার স্ট্রবেরি ও ক্যাপসিকাম চুরি হওয়ার অভিযোগ উঠে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানান, বারবার অভিযোগ করেও প্রশাসন থেকে নিরাপত্তার তেমন কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয় না।

পোলট্রি মুরগি ও ওষুধ চুরির পর আনসার কমান্ডারকে নিরাপত্তার ব্যাপারে জিজ্ঞাস করা হলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, আমাদের ওপর থেকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হারুনুর রশীদ সুমন বলেন, আমাদের পর্যাপ্ত আনসার সদস্য নেই। তারপরও মাঝে মাঝে টহল দেওয়া হয়।

অ্যাগ্রোনোমি ফিল্ডের গবেষণা ফসলের নিরাপত্তার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশনের নির্মাণকাজ শেষ না হলে আমরা কিছু করতে পারছি না। তবে বিষয়টা নিয়ে আমরা ভাবছি।

গবেষণাগার থেকে মুরগি চুরি!

 শেকৃবি প্রতিনিধি 
০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কৃষিশিক্ষা ও গবেষণার অনন্য প্রতিষ্ঠান শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা গবেষণার সুযোগ পেলেও নিরাপত্তার অভাবে বারবার গবেষণার বস্তু চুরি হওয়ায় আগ্রহ হারাচ্ছেন তারা। বিভিন্ন সময়ে মাঠ থেকে বিভিন্ন গবেষণার ফসল চুরি হওয়ার অভিযোগ উঠলেও এবার পোলট্রি মুরগি চুরি হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

রোববার মাস্টাসের শিক্ষার্থীর করা চলমান গবেষণার পোলট্রি ফার্ম থেকে বেশ কিছু মুরগি ও ওষুধ চুরি হওয়ার অভিযোগ করেছেন। বিপুল মজুমদার ও নিতু সাহা নামের এ অভিযোগ করেন। 

তারা বলেন, এর আগে এ গবেষণা শুরুর দিকে একবার চুরি হলে গত ২১ নভেম্বর আমরা প্রক্টর বরাবর নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য একটি আবেদন করি। কিন্তু প্রশাসন থেকে কোনো গুরুত্ব না দেওয়ায় ১৯ দিন পর আবারো গবেষণার মুরগি ও কিছু ওষুধ চুরি হয়ে গেল। নিজেদের টাকা খরচ করে গবেষণা করা জিনিসপত্র এভাবে বারবার চুরি হওয়ায় আমরা হতাশ। তবে পরবর্তীতে যেন এভাবে আর চুরি করতে না পারে সেই ব্যপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। 

এর আগে গত বছর জানুয়ারি ও মার্চ মাসে মাঠ থেকে গবেষণার স্ট্রবেরি ও ক্যাপসিকাম চুরি হওয়ার অভিযোগ উঠে। 

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানান, বারবার অভিযোগ করেও প্রশাসন থেকে নিরাপত্তার তেমন কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয় না। 

পোলট্রি মুরগি ও ওষুধ চুরির পর আনসার কমান্ডারকে নিরাপত্তার ব্যাপারে জিজ্ঞাস করা হলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, আমাদের ওপর থেকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। 

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হারুনুর রশীদ সুমন বলেন, আমাদের পর্যাপ্ত আনসার সদস্য নেই। তারপরও মাঝে মাঝে টহল দেওয়া হয়। 

অ্যাগ্রোনোমি ফিল্ডের গবেষণা ফসলের নিরাপত্তার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশনের নির্মাণকাজ শেষ না হলে আমরা কিছু করতে পারছি না। তবে বিষয়টা নিয়ে আমরা ভাবছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন