শাবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন
jugantor
শাবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন

  শাবি প্রতিনিধি  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:২৪:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

শাবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ধরণ পরিবর্তন

অনশন ভাঙার পর এবার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন করেছেন। তবে দাবি আদায়ের আগ পর্যন্ত অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টায় এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী মোহাইমিনুল বাশার রাজ বলেন, আমরা আগামীকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অবরোধ তুলে নেব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসহ সব ফটক খুলে দেব। সব একাডেমিক ভবনের তালাও খুলে দেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে সব খাবার দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে আমরা একটি টং স্থাপন করেছি। আমাদের এ টং খোলা থাকবে। সেখানে শিক্ষার্থীদের জন্য আমাদের সাধ্যমতো খাবারের ব্যবস্থা থাকবে।

উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে জানিয়ে রাজ বলেন, উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের আহমেদের বাসার সামনে যে মানব প্রাচীর আছে, তা তুলে নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন করছি। আমরা জাফর স্যার এবং ইয়াসমিন ম্যামের অনুরোধে অনশন থেকে সরে এসেছি। যতদিন আমাদের দাবি আদায় না হচ্ছে, ততদিন আমরা ক্যাম্পাসে অবস্থান করে সব সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড, রোড পেইন্টিং এবং সভা, সমাবেশের মাধ্যমে আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাব।

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

শাবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন

 শাবি প্রতিনিধি 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:২৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শাবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ধরণ পরিবর্তন
ছবি: যুগান্তর

অনশন ভাঙার পর এবার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন করেছেন। তবে দাবি আদায়ের আগ পর্যন্ত অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টায় এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী মোহাইমিনুল বাশার রাজ বলেন, আমরা আগামীকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অবরোধ তুলে নেব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসহ সব ফটক খুলে দেব। সব একাডেমিক ভবনের তালাও খুলে দেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে সব খাবার দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে আমরা একটি টং স্থাপন করেছি। আমাদের এ টং খোলা থাকবে। সেখানে শিক্ষার্থীদের জন্য আমাদের সাধ্যমতো খাবারের ব্যবস্থা থাকবে।

উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে জানিয়ে রাজ বলেন, উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের আহমেদের বাসার সামনে যে মানব প্রাচীর আছে, তা তুলে নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের আন্দোলনের ধরন পরিবর্তন করছি। আমরা জাফর স্যার এবং ইয়াসমিন ম্যামের অনুরোধে অনশন থেকে সরে এসেছি। যতদিন আমাদের দাবি আদায় না হচ্ছে, ততদিন আমরা ক্যাম্পাসে অবস্থান করে সব সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড, রোড পেইন্টিং এবং সভা, সমাবেশের মাধ্যমে আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাব।

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন