বিক্ষোভের পর ইবির হল বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন
jugantor
বিক্ষোভের পর ইবির হল বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন

  ইবি প্রতিনিধি  

২৭ জুন ২০২২, ২২:২৯:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রভোস্ট কাউন্সিলের দেওয়া আবাসিক হল বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়েছে। প্রশাসনিক সিদ্ধান্তে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে ২ জুলাই থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছুটি শুরু হলেও প্রভোস্ট কাউন্সিল ৩০ জুন হল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়।

ক্যাম্পাস বন্ধের দুই দিন আগেই হল বন্ধের সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের এ ক্ষোভ রাতেই আন্দোলনে রূপ নেয়। হল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান ও সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়ে রোববার রাত সাড়ে ৮টায় বিক্ষোভ মিছিল করে ভিসি বাংলোর সামনে অবস্থান নেন তারা। একই দাবিতে ছাত্রী হলেও বিক্ষোভ করেন ছাত্রীরা।

পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা এসে প্রভোস্ট কাউন্সিল ও শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসে সমাধানের আশ্বাস দিলে আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা। পরে সোমবার সকাল ১০টায় প্রক্টর অফিসে প্রভোস্ট কাউন্সিল, প্রক্টরিয়াল বডি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালামের সঙ্গে আলোচনা করে প্রভোস্ট কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে পুনরায় প্রজ্ঞাপন দেওয়া হয়।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ৩০ জুনের পরিবর্তে শিক্ষার্থীদের ২ জুলাই সকাল ১০টায় হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে হল খোলার সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে। ১৫ জুলাই সকাল ১০টায় হলসমূহ খুলে দেওয়া হবে।

বিক্ষোভের পর ইবির হল বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন

 ইবি প্রতিনিধি 
২৭ জুন ২০২২, ১০:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রভোস্ট কাউন্সিলের দেওয়া আবাসিক হল বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়েছে। প্রশাসনিক সিদ্ধান্তে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে ২ জুলাই থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছুটি শুরু হলেও প্রভোস্ট কাউন্সিল ৩০ জুন হল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়।

ক্যাম্পাস বন্ধের দুই দিন আগেই হল বন্ধের সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের এ ক্ষোভ রাতেই আন্দোলনে রূপ নেয়। হল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান ও সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়ে রোববার রাত সাড়ে ৮টায় বিক্ষোভ মিছিল করে ভিসি বাংলোর সামনে অবস্থান নেন তারা। একই দাবিতে ছাত্রী হলেও বিক্ষোভ করেন ছাত্রীরা।

পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা এসে প্রভোস্ট কাউন্সিল ও শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসে সমাধানের আশ্বাস দিলে আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা। পরে সোমবার সকাল ১০টায় প্রক্টর অফিসে প্রভোস্ট কাউন্সিল, প্রক্টরিয়াল বডি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালামের সঙ্গে আলোচনা করে প্রভোস্ট কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে পুনরায় প্রজ্ঞাপন দেওয়া হয়।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ৩০ জুনের পরিবর্তে শিক্ষার্থীদের ২ জুলাই সকাল ১০টায় হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে হল খোলার সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে। ১৫ জুলাই সকাল ১০টায় হলসমূহ খুলে দেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন