ফেসবুকে ছাত্রলীগকে কটূক্তি করায় ইবিতে ছাত্রী বহিষ্কার

  ইবি প্রতিনিধি ০৬ আগস্ট ২০১৮, ২১:৪৩ | অনলাইন সংস্করণ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছাত্রলীগকে নিয়ে অশালীন স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে মৌসুমী মৌ নামে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক ছাত্রীকে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

মৌসুমী মৌ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী বলে জানা গেছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছাত্রলীগকে নিয়ে অশালীন স্ট্যাটাস দেয় মৌসুমী মৌ। এ ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক ওই ছাত্রীকে বহিষ্কার করার আবেদন জানিয়ে প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন। এর প্রেক্ষিতে ওই ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে এ ঘটনায় তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করেছে প্রশাসন।

এছাড়া ছাত্রলীগ সভাপতি বাদী ইবি থানায় একটি অভিযোগও দায়ের করেছেন।

রেজিস্ট্রার অফিস সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাত ১০টার দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছাত্রলীগকে নিয়ে কটূক্তি করে নিজ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে অশালীন স্ট্যাটাস দেয় মৌসুমী মৌ। স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন “নিষিদ্ধ পল্লিতে বেলুন দুর্ঘটনায় যাদের জন্ম তাদেরকে ছাত্রলীগ বলে। ##কালেকটেড##।”

এর কিছুক্ষণের মধ্যেই শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট নিয়ে ফেসবুকে শেয়ার করতে থাকে। একই সঙ্গে তারা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। একপর্যায়ে স্ক্রিনশটটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।

তবে পরবর্তীতে ওই স্ট্যাটাসটি ছাত্রীর আইডিতে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ছাত্রলীগের অভিযোগ স্ট্যাটাসটি ডিলিট করে দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় সোমবার সকালে ওই ছাত্রীর বিচার দাবি করে সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় সভাপতি বরাবর লিখিত অভিযোগ করে ছাত্রলীগ। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমানের (কার্যালয়ে) কাছে লিখিত অভিযোগ দেয় নেতাকর্মীরা। ছাত্রলীগ কর্মীরা ওই ছাত্রীর তাৎক্ষণিক বহিষ্কার দাবি করেন।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ এবং ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সভাপতি সুতাপ কুমার।

পরবর্তীতে দুপুর ২টার দিকে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে মৌসুমী মৌকে সাময়িক বহিষ্কারের বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

একইসঙ্গে তাকে কেন স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না- এ মর্মে সাত দিনের মধ্যে তার কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়েছে।

ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করার জন্য ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. রেজওয়ানুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করেছে প্রশাসন। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল প্রভোস্ট প্রফেসর ড. আহসান উল আম্বিয়া এবং সহকারী প্রক্টর এসএম আবদুর রহিম।

প্রসঙ্গত, ওই ছাত্রীর বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে প্রশাসনের সঙ্গে এক কর্তাব্যক্তির প্ররোচনায় নিজ বিভাগের শিক্ষক সহকারী অধ্যাপক আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ দেয়। এর প্রেক্ষিতে ওই শিক্ষককে চাকরিচ্যুত করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন বাদী হয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা গেছে।

ছাত্রলীগ সভাপতি যুগান্তরকে বলেন, ‘ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য কখনোই সহ্য করা হবে না। তার বিরুদ্ধে আমি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।’

অভিযোগের বিষয়ে ইবি থানার ওসি রতন শেখ বলেন, ‘অভিযোগটি আমলে নিয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

এবিষয়ে মৌসুমী মৌ যুগান্তরকে বলেন, ‘আমার আইডিতে কোনো রাজনৈতিক পোস্ট নেই। আইডি আমার নিয়ন্ত্রণে ছিল না। হ্যাকড করা হয়েছিল। স্ট্যাটাসের বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ‘মিস কন্ড্যাক্ট এর অধীনে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এমন মন্তব্য দেশের চলমান পরিস্থিতিতে সরকারের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক বক্তব্য বলে গণ্য করা হয়।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর
-

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×