ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটিতে সাংবাদিকদের নিয়ে মিলনমেলা

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

ড্যাফোডিলিয়ান ইন মিডিয়া শীর্ষক প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের আয়োজনে ‘ড্যাফোডিলিয়ান ইন মিডিয়া’ শীর্ষক প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে এ প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সম্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার ও আন্তর্জাতিক যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ড. গোলাম রহমান।

মঙ্গলবার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ঊর্ধ্বতন সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মো. আনোয়ার হাবিব কাজলের পাঠানো ইমেইল বার্তায় এ তথ্য জানায়।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক ও সামাজিকবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর এ এম এম হামিদুর রহমান, স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান শেখ মোহাম্মদ সফিউল ইসলাম, বিভাগীয় শিক্ষক আনিস আলমগীর, ড. তৌফিক এলাহী, আফতাব আহমেদ ও এনায়েতুর রহমান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার ড. গোলাম রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে গেলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সব সম্পর্ক শেষ হয়ে যায় না। বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার একটি অনন্য উপায় হচ্ছে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। এর মাধ্যমে একই ব্যাচের বন্ধু, পূর্ববর্তী ব্যাচের ভাইবোন এবং পরবর্তী ব্যাচের অনুজদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা যায়। এতে নেটওয়ার্কিং শক্তিশালী হয়।

তিনি বলেন, কর্মক্ষেত্রে সফল হতে হলে নেটওয়ার্কিংয়ের বিকল্প নেই। বর্তমান সময়কে তিনি নেটওয়ার্কিংয়ের যুগ বলে অভিহিত করে তিনি পেশাগত জীবনে এর প্রতিফলন ঘটিয়ে যোগ্যতা ও দক্ষতা দিয়ে সুফল ঘরে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে ড. মো. সবুর খান বিশ্বের নামিদামি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের মিথস্ক্রিয়তা ও সুসম্পর্ক বৃদ্ধির ওপর জোর দেন এবং প্রয়োজনে তাদের বিভাগে আমন্ত্রণ জানিয়ে দ্রুত বিকাশমান গণমাধ্যমের বৈশ্বিক পরিবর্তনের ধারার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের খাপ খাইয়ে বা মানিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান।

এ প্রসঙ্গে তিনি বিশ্বনন্দিত মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সাইমন ড্রিং এর উদাহরণ তুলে ধরে তিনি বলেন, একুশে টেলিভিশনের দায়িত্ব পালনকালে তিনি যে সংবাদকর্মী বাহিনী গড়ে তুলে ছিলেন, তারাই আজকের গোটা বাংলাদেশের মিডিয়া জগতের নেতৃত্ব দিচ্ছে। তিনি বাংলাদেশি সাংবাদিকদের জন্য আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে কাজ করার সক্ষমতা ও সুযোগ তৈরির ওপর জোর দেয়ার আহ্বান জানান।

তিনি আরও বলেন, তোমাদের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটাই চাওয়া এবং সেটা হচ্ছে, কীভাবে ইন্ড্রাস্ট্রির সঙ্গে একাডেমির মিথস্ক্রিয়া করা যায় সে ব্যাপারে আমাদের সহযোগিতা করবে। এছাড়া তোমাদের বিভাগের ছোট ভাইবোন যারা রয়েছে তাদের ইন্টার্নশিপের ক্ষেত্রে এবং কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবে।

অনুষ্ঠানে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা নিজেদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন এবং পুরনো বন্ধুদের কাছে পেয়ে দীর্ঘ আড্ডায় মেতে ওঠেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×