ফের কুবি বাসে দুর্বৃত্তদের হামলা, চালকসহ আহত ২

প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ

  কুবি প্রতিনিধি ১১ অক্টোবর ২০১৮, ২২:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

ফের কুবি বাসে দুর্বৃত্তদের হামলা, চালকসহ আহত ২
প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষার্থীদের বহন করা বিআরটিসির ভাড়া করা বাসে ফের দৃর্বৃত্তদের হামলার ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এর প্রতিবাদে ও বিচারের দাবিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা। পরে কুমিল্লা সদর দক্ষিণের সহকারী পুলিশ সুপার মো. গোলাম আম্বিয়া মাহমুদ ৬ ঘণ্টার মধ্যে অপরাধীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে রাত ১০টার দিকে শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থী। এ সময় মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

বাসে হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দশম ব্যাচের শিক্ষার্থী দ্বীন মোহাম্মদ এবং বাসটির চালক আলাউদ্দিন গুরুত্বর আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাস কুমিল্লা শহরের ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের গেটে আসলে হঠাৎ সামনের দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেল বাসের গতিরোধ করে।

এ সময় মোটরসাইকেলে থাকা ২ থেকে ৩ জন বাস ড্রাইভার আলাউদ্দিনের ওপর চড়াও হয় এবং তাকে বাস থেকে নামিয়ে ব্যাপক মারধর করতে থাকে।

তখন চালককে মারধরের কারণ জানতে চান গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১০ম ব্যাচের শিক্ষার্থী দ্বীন মোহাম্মদ। পরে তারা দ্বীন মোহাম্মদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে তাকেও মারধর শুরু করে।

এতে তিনি গুরুত্বর আহত হন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই আশপাশে থেকে বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র ও চাপাতি নিয়ে তার ওপর হামলা চালায় এবং ফের এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি মারতে থাকে।

এ সময় বাসে থাকা শিক্ষার্থীরা মোবাইল ফোনে ভিডিও করার চেষ্টা করলে তাদেরকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে হাতে থাকা ফোন কেড়ে নেয় এবং ধারণ করা ভিডিও ডিলিট করে দেয়। পরে হামলাকারী দুর্বৃত্তরা বাসটি আটকে রাখে।

এসময় ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাসে থাকা শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, ভিক্টোরিয়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সদস্য আশিকের নেতৃত্বে ওই হামলা চালানো হয়।

তবে হামলার ঘটনা আশিক অস্বীকার করে বলেন, আমার কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ঝগড়া হলে তারা মারধর করেছে। তখন ঘটনা শুনে আমি সেখানে যাই এবং থামানোর চেষ্টা করি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মাদ কামাল উদ্দীন বলেন, আমি ঘটনা জানতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করি। তদন্ত করে এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মামলা করা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ এ ব্যাপারে মামলা করা হবে। আমরা এ বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। অপরাধীদের কোন ছাড় দেয়া হবে না।

উল্লেখ্য, এর আগেও গত ১৩ মে কুমিল্লা পুলিশ লাইন এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বহনকারী একটি বাসে কোন কারণ ছাড়া স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হামলায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাসও ভাংচুর করা হয়। এর কোন প্রতিকার এখনও পর্যন্ত পায়নি শিক্ষার্থীরা। ফলে ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে শিক্ষার্থীরা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter