বিভাগ পরিবর্তনের ইউনিট চেয়ে রাজধানীতে ভর্তিচ্ছুদের আন্দোলন
jugantor
বিভাগ পরিবর্তনের ইউনিট চেয়ে রাজধানীতে ভর্তিচ্ছুদের আন্দোলন

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৬ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯:১৫:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় অন্যান্যবারের মতো বিভাগ পরিবর্তনকারী ইউনিট রাখার দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন বিভিন্ন কলেজের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

শনিবার রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে তারা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেন। একপর্যায়ে আন্দোলনকারীরা পুলিশি বাধার মুখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নেন।

সম্প্রতি ‘বিভাগ পরিবর্তন করতে চাইলেও নিজ বিভাগের বিষয়ের ওপর পরীক্ষা দিয়ে বিভাগ পরিবর্তন করতে হবে’-এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গুচ্ছ পদ্ধতিতে থাকা সব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। মূলত এমন সিদ্ধান্তের পরই আন্দোলনে নামেন সারা দেশের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। ইতোমধ্যে দেশের সবগুলো বিভাগীয় শহরে মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

শনিবার শিক্ষার্থীদের বহন করা প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘মোদের দাবি একটাই, বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট চাই’, ‘গুচ্ছ পদ্ধতির অনিয়ম মানি না মানব না’, ‘বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট ছাড়া, গুচ্ছ চাই না’, ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট ছাত্রদের অধিকার’।

আন্দোলনকারীদের একজন যুগান্তরকে বলেন, আমি ২০২০ সালের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলাম। বিজ্ঞান নেয়াটা একটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিল, তাই উচ্চ শিক্ষার জন্য সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে পরীক্ষা দিব। এটা আমাদের মৌলিক দাবি। তাই আমি শুরু থেকেই বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান পড়েছি। এখন জানলাম বিজ্ঞানের সাবজেক্ট পড়েই বিভাগ পরিবর্তন করতে হবে। এটা আমাদের ভবিষ্যত নিয়ে ছিনিমিনি খেলা ছাড়া কিছু নয়। এছাড়াও যারা দ্বিতীয়বার ভর্তিযুদ্ধে অংশ নিবেন তারা প্রায় দেড় বছর সায়েন্সের পড়া বাদ দিয়ে বাংলা, ইংরেজি পড়ছেন, তারা তাহলে কী করবে? এভাবে তো মেধার সঠিক মূল্যায়ন হবে না।

গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষাবিষয়ক কার্যক্রমের যুগ্ম-আহ্বায়কের দায়িত্বে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মীজানুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকে শিক্ষার্থীরা যে বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন তাদের সে বিষয়েই পরীক্ষা দিতে হবে। মূলত তিন বিভাগের (সায়েন্স, আর্টস, বাণিজ্য) জন্য তিনটি পরীক্ষা হবে। এখানে ফলাফল করেই তারা বিভাগ পরিবর্তন করতে পারবেন। বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা ইউনিটের কথা আমরা ভাবছি না।

বিভাগ পরিবর্তনের ইউনিট চেয়ে রাজধানীতে ভর্তিচ্ছুদের আন্দোলন

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় অন্যান্যবারের মতো বিভাগ পরিবর্তনকারী ইউনিট রাখার দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন বিভিন্ন কলেজের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

শনিবার রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে তারা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেন। একপর্যায়ে আন্দোলনকারীরা পুলিশি বাধার মুখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নেন।

সম্প্রতি ‘বিভাগ পরিবর্তন করতে চাইলেও নিজ বিভাগের বিষয়ের ওপর পরীক্ষা দিয়ে বিভাগ পরিবর্তন করতে হবে’-এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গুচ্ছ পদ্ধতিতে থাকা সব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। মূলত এমন সিদ্ধান্তের পরই আন্দোলনে নামেন সারা দেশের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। ইতোমধ্যে দেশের সবগুলো বিভাগীয় শহরে মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

শনিবার শিক্ষার্থীদের বহন করা প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘মোদের দাবি একটাই, বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট চাই’, ‘গুচ্ছ পদ্ধতির অনিয়ম মানি না মানব না’, ‘বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট ছাড়া, গুচ্ছ চাই না’, ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট ছাত্রদের অধিকার’।

আন্দোলনকারীদের একজন যুগান্তরকে বলেন, আমি ২০২০ সালের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলাম। বিজ্ঞান নেয়াটা একটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিল, তাই উচ্চ শিক্ষার জন্য সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে পরীক্ষা দিব। এটা আমাদের মৌলিক দাবি। তাই আমি শুরু থেকেই বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান পড়েছি। এখন জানলাম বিজ্ঞানের সাবজেক্ট পড়েই বিভাগ পরিবর্তন করতে হবে। এটা আমাদের ভবিষ্যত নিয়ে ছিনিমিনি খেলা ছাড়া কিছু নয়। এছাড়াও যারা দ্বিতীয়বার ভর্তিযুদ্ধে অংশ নিবেন তারা প্রায় দেড় বছর সায়েন্সের পড়া বাদ দিয়ে বাংলা, ইংরেজি পড়ছেন, তারা তাহলে কী করবে? এভাবে তো মেধার সঠিক মূল্যায়ন হবে না।

গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষাবিষয়ক কার্যক্রমের যুগ্ম-আহ্বায়কের দায়িত্বে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মীজানুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকে শিক্ষার্থীরা যে বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন তাদের সে বিষয়েই পরীক্ষা দিতে হবে। মূলত তিন বিভাগের (সায়েন্স, আর্টস, বাণিজ্য) জন্য তিনটি পরীক্ষা হবে। এখানে ফলাফল করেই তারা বিভাগ পরিবর্তন করতে পারবেন। বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা ইউনিটের কথা আমরা ভাবছি না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন