দীপন হত্যা মামলায় মেজর জিয়াসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ২২:৩৮ | অনলাইন সংস্করণ

প্রকাশক দীপন।
প্রকাশক দীপন। ফাইল ছবি

প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন হত্যা মামলায় নিষিদ্ধ জঙ্গিগোষ্ঠী আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সামরিক শাখার প্রধান ও বরখাস্তকৃত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক জিয়াসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফজলুর রহমান এ চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন।

ঢাকা মহানগর হাকিম সারাফুজ্জামান আনছারী চার্জশিটটি দেখে তা আগামী ১৮ ডিসেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার জিআরও এসআই মাহমুদুর রহমান যুগান্তরকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

চার্জশিটভুক্ত অপর আসামিরা হলেন- মইনুল হাসান শামীম ওরফে সামির ওরফে ইমরান, আবদুর সবুর সামাদ ওরফে সুজন ওরফে রাজু ওরফে স্বাদ, খাইরুল ইসলাম ওরফে জামিল ওরফে জিসান, আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন ওরফে শাহরিয়ার, শেখ আব্দুল্লাহ ওরফে জুবায়ের ওরফে জায়েদ ওরফে জাবেদ ওরফে আবু ওমায়ের ও আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আব্দুল্লাহ।

আসামিদের মধ্যে জিয়াউল হক জিয়া ও আকরাম হোসেন পলাতক। বাকি আসামিরা কারাগারে রয়েছেন। আর কারাগারে থাকা সকল আসামি আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

এ ছাড়া চার্জশিটে ১১ জনকে অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়েছে। এরা হলেন- আরাফাত রহমান, সেলিম ওরফে হাদী, আলম, আকাশ, তৈয়ব, জনি, আসাদ, হাসান, তালহা, শরিফুল ও তারেক। আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এদের নাম এসেছিল।

চার্জশিটে বলা হয়, দীপনকে হত্যার নির্দেশদাতা, মূল পরিকল্পনা ও নেতৃত্বে ছিলেন পলাতক সৈয়দ জিয়াউল হক। আসামি খাইরুল, আবদুস সবুর ও মইনুলকে তিনি হত্যাকাণ্ডের আগে প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন।

রাজধানীর আজিজ সুপার মার্কেটের ৩য় তলায় ‘জাগৃতি’ প্রকাশনী অফিসে ঢুকে কতিপয় অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ফয়সাল আরেফিন দীপনের ঘাড়ের পেছনে আঘাত করে হত্যা করে। ঘটনাটি ঘটে ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর আনুমানিক বেলা সাড়ে ৩টা থেকে পৌনে ৪টার মধ্যে। হত্যাকাণ্ড শেষে অফিসের অটোলক তালা লক করে পালিয়ে যায় জঙ্গিরা। এ ঘটনায় ২ নভেম্বর শ্বশুর অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হকের সহযোগিতায় দীপনের স্ত্রী ডা. রাজিয়া রহমান বাদী হয়ে শাহাবাগ থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×