পুষ্টিহীনতায় ভুগছে দেশের ১০ শতাংশ মানুষ

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ২০:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

পুষ্টিহীনতায় ভুগছে শিশুরা।
পুষ্টিহীনতায় ভুগছে শিশুরা। ছবি সংগৃহীত

পুষ্টি বিষয়ে সচেতনতা ও পুষ্টি উন্নয়নের গতিকে ত্বরান্বিত করতে শুরু হয়েছে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ-২০১৯। বর্তমানে দেশে শিশুমৃত্যুর হার কমেছে। তবে এখনও ১০ শতাংশের মতো মানুষ পুষ্টিহীনতায় ভুগছে।

পর্যাপ্ত পুষ্টি নিশ্চিত করার লক্ষে জাতীয় পুষ্টিনীতি-২০১৫কে অনুসরণ করে দ্বিতীয় পুষ্টিনীতি-২০২৫ এর কর্মপন্থা গ্রহণ করা হয়েছে। জনগণের খাদ্যাভ্যাস ও খাদ্য পরিকল্পনায় পুষ্টির বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে এবার প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘খাদ্যের কথা ভাবলে পুষ্টির কথাও ভাবুন’।

মঙ্গলবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ঢাকা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. শামস উদ্দিন।

তিনি জানান, পুষ্টিনীতি-২০২৫ এর মধ্যে রয়েছে, শিশুর জন্মের এক ঘণ্টার মধ্যে মায়ের বুকের দুধ খাওয়ানো ৮০ শতাংশে উন্নীত করা, ৬ মাসের কম বয়সের শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ানোর হার বাড়িয়ে ৭০ শতাংশে উন্নীত করা।

এছাড়া ২০ থেকে ২৩ সপ্তাহ বয়সের শিশুর বুকের দুধ খাওয়ানোর হার ৯৫ শতাংশে উন্নীত করা, ৬ থেকে ২৩ মাস বয়সের শিশুর ন্যূনতম খাবার বাড়িয়ে ৪০ শতাংশ করা, কম ওজনের জন্মহার কমিয়ে ১৬ শতাংশ, ৫ বছরের কম বয়সী শিশুর খর্বাকৃতি হার কমিয়ে ২৫ শতাংশে উন্নীত করা।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার থেকে আগামী ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশের মতো ঢাকা জেলাতেও পালিত হবে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ। গৃহীত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সার্জন অফিসে আলোচনা সভা ও র‌্যালি উদযাপন।

আগামী ২৪ এপ্রিল কামরাঙ্গীচরে ৩১ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের বহির্বিভাগে কাউন্সেলিং, মাঠপর্যায়ে কৃষকদের নিয়ে স্বাস্থ্যসম্মত ও পুষ্টিকর খাবার নির্বাচন প্রতিযোগিতা, ২৫ এপ্রিল আজিমপুর গালস স্কুলে স্যানিটেশন ও হাইজিন বিষয়ে পাঠদান। ২৬ এপ্রিল তেজগাঁও থনা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পুষ্টি মেলা, ২৭ এপ্রিল কমিউনিটি ক্লিনিকে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, ২৮ এপ্রিল আলোচনা সভা এবং শেষ দিনে সারা দেশে একইসঙ্গে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উদযাপন করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×