বিরল রোগে আক্রান্ত জুথিকে বাঁচাতে প্রয়োজন ২ লাখ টাকা

প্রকাশ : ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

বিরল রোগে আক্রান্ত জুথি। ছবি সংগৃহীত

বয়স মাত্র ৭ বছর। এই বয়সে বিরল রোগে আক্রান্ত জুথি আক্তার। জুথির জন্মের পর কান, গাল ও গলায় লাল দাগ ছিল। মনে হচ্ছিল জন্মদাগ। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে লাল দাগের স্থান থেকে মাংস বাড়তে থাকে।

জুথি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ছয়তলার ৬২৫ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন। রোগটির কারণে তার বাম কান, গাল ও গলায় চামড়া ঝুলে পড়ছে।
তবে এই শিশুর চিকিৎসা ব্যয় কৃষক বাবার পক্ষে বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। গত দুই মাস ধরে হাসপাতালে মেয়ের চিকিৎসা চালাতে কৃষক বাবা হিমশিম খাচ্ছেন।
জানা গেছে, জন্মের পর থেকেই তার এ সমস্যা। কিন্তু কোনো দিনও তাকে নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যায়নি তার বাবা-মা। পরে আত্মীয়স্বজনদের সহযোগিতায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

জুথির বাবা বাদশা সরদার জানান, তার জন্মের পর কান, গাল ও গলায় লাল দাগ ছিল। তবে জুথি বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে লাল দাগের স্থান থেকে মাংস বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে দেখা যায়, দাগের জায়গা থেকে মাংসপিণ্ডের মতো বেড়েই চলেছে। নিচের অংশে চামড়া ঝুলছে।
তিনি বলেন, মেয়ের এই বিরল রোগের কারণে চরম বিপাকে পড়েছেন তিনি। মেয়ের চিকিৎসা চালানোর মতো ক্ষমতা তার নেই। তাই মেয়ের চিকিৎসা করানো খুবই ব্যয়বহুল হয়ে পড়েছে।
তিনি আরও জানান, এই রোগের কারণে জুথি স্কুলে যেতে পারে না। অন্য শিশুরা তাকে দেখে ভয় পায়। এ জন্য জুথি স্কুলে যেতে চায় না।
জুথি শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের পূর্বকোটাপাড়া গ্রামের বাদশা সরদারের মেয়ে। সে ব্র্যাক গণশিক্ষার প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।