আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় ইসলামবাগে পলিথিন কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৫ আগস্ট ২০১৯, ০১:০০ | অনলাইন সংস্করণ

আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় লালবাগে পলিথিন কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে
আগুন নেভাচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইাউনিট

রাজধানীর চকবাজার থানাধীন পোস্তা এলাকায় লাগা ভয়াবহ আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা।

ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট ও স্থানীয়দের প্রায় আড়াই ঘণ্টার নিরলস চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

আগুনের নিয়ন্ত্রনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সোহরাব হোসেন।

রাত সোয়া ১টার সময় যুগান্তরকে তিনি বলেন, রাত সাড়ে ১০টার দিকে লাগা এই আগুন কিছুক্ষণ আগেই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এখন ফায়ার সাভির্সের ভেতরে ধোয়া নিরসনের কাজ করছেন, একই সাথে অন্যান্য সব কিছু পর্যবেক্ষন করছেন।

বুধবার (১৪ আগস্ট) রাত ১০ টা ৪০মিনিটে আগুনের সূত্রপাত হয়।

এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন উদ্ধারকর্মীরা।

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণকক্ষের কর্তব্যরত কর্মকর্তা এরশাদ জানান, পোস্তায় রাত পৌনে ১১টার দিকে একটি ভবনে অবস্থিত একটি জুতোর কারখানা, একটি পলিথিন কারখানা ও একটি আবাসিক বাড়িতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট সেখানে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। প্রায় দুই ঘণ্টা কাজ করে আগুন অনেকটা কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এখনও কাজ করে যাচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ওই পলিথিন কারখানার পাশেই দুটি বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার রয়েছে। আগুন যাতে সেগুলোর দিকে এগিয়ে যেতে না পারে সে লক্ষে সতর্ক রয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

আগুনের সূত্রপাত বিষয় এখন পর্যন্ত সঠিক কিছু না বলতে পারলেও ট্রান্সফরমার থেকেই আগুন লেগেছে বলে দাবি করছেন স্থানীয়দের কেউ কেউ।

তবে যেখান থেকেই আগুন লাগুক, জুতা ও পলিথিন কারখানায় দাহ্য পদার্থের কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে বলে জানিয়েছেন উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার রাসেল শিকদার।

হতাহতের বিষয়ে রাসেল শিকদার বলেন, সম্ভবত ঈদের ছুটি থাকায় ওই ভবনে কেউ অবস্থান করছিল না। তাই এ অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর আমরা পাইনি।

একই কথা বলেছেন চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সোহরাব হোসেন। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা কোনো ধরনের আহত কিংবা নিহতের কোন খবর পাইনি। যেহেতু এটা একতলা টিনশেড বাড়ি ছিলো এবং ঈদের ছুটি ছিলো তাই এখানে বড় ধরণের কোন ক্ষয়ক্ষতির আশংকাও নেই।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আগুন প্রথমে প্লাস্টিক কারখানায় দেখেছিলেন তারা। পরে ধীরে ধীরে অন্য কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে।

ফায়ার সার্ভিসকর্মীদের প্রশংসা করে তারা জানান, ঘটনাস্থলে যাওয়ার পথটি সরু হওয়ার কারণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা সহজে ভেতরে ঢুকতে পারছিলেন না। তবুও তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছেন। তারা আগুনের লেলিহান শিখার যতটা সম্ভব কাছাকাছি গিয়ে পাইপ টেনে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেছেন।

ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার মো. বাবুল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, আগুন নেভাতে হেড কোয়ার্টার, পলাশী, লালবাগ, হাজারীবাগ ও সদরঘাটের মোট ১৬টি ইউনিট কাজ করছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×