কেরানীগঞ্জের আগুনে আরেকজনের মৃত্যু, কৃত্রিম শ্বাস দেয়া হচ্ছে ৯ জনকে

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:৪৯:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানায় আগুনে দগ্ধ আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকাল পৌনে ৮টায় মারা যান আসাদ (১৪) নামে এক কিশোর।

তার বাড়ি বরগুনার হাকশুনিয়া গ্রামে। বিকালে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। এ নিয়ে এ অগ্নিকাণ্ডে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৪-তে।

বার্ন ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, শনিবার সকালে দগ্ধ আসাদের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৩ জনের মৃত্যৃ হলো। বার্ন ইউনিটে বর্তমানে ১৭ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। এরমধ্যে ৯ জনকে কৃত্রিম শ্বাস দিয়ে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে। বাকিরাও শঙ্কামুক্ত নয়। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ৮ জন ভর্তি রয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার পর্যন্ত চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৩ জন মারা গেছেন। একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ নিয়ে মোট ১৪ জনের মৃতের তথ্য শনিবারও প্রকাশ করেছিল যুগান্তর। তবে মৃতের তালিকায় থাকা আবদুর রাজ্জাকের পরিবার দাবি করে আসছিল তিনি (রাজ্জাক) মারা যাননি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শনিবার ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, আব্দুর রাজ্জাককে কৃত্রিম শ্বাস দিয়ে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়ার হিজলতলা এলাকার প্রাইম প্লেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে বুধবার বিকালে আগুন লাগে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত