কোরবানির বর্জ্য অপসারণ না হলে যে নম্বরে অভিযোগ করবেন
jugantor
কোরবানির বর্জ্য অপসারণ না হলে যে নম্বরে অভিযোগ করবেন

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০১ আগস্ট ২০২০, ১৩:১৯:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

কোরবানির বর্জ্য অপসারণ না হলে যে নম্বরে অভিযোগ করবেন

এবারের ঈদে কোরবানির পশু বর্জ্য অপসারণে ‘বিশেষ ব্যবস্থা’ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম পর্যবেক্ষণে জন্য দক্ষিণের নগর ভবনের শীতলক্ষ্যা হলে খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ।

এজন্য ০১৭০৯৯০০৭০৫ নম্বরে ফোন করে বর্জ্য অপসারণের বিষয়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষে অভিযোগ জানাতে পারবেন দক্ষিণ সিটির বাসিন্দারা।

শনিবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ঈদের নামাজ পড়ার পর সাংবাদিকদের এ তথ্য দেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।

এর আগে মেয়র তাপস জানিয়েছিলেন, ঈদের দিনে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ঢাকা নগরীর বর্জ্য অপসারণ করা হবে। শনিবার দুপুর ২টা থেকে এ বিষয়ে বিশেষ কর্মসূচি নেয়া হয়েছে এবং সিটি কর্পোরেশনের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

শুক্রবার রাত ১২টার পর থেকে রাজধানীর হাটগুলোর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি।

শনিবার ঈদের নামাজ শেষে সাংবাদিকদের মেয়র বলেন, কোরবানির পরের যে বর্জ্য তা আজ দুপুর থেকে সম্পূর্ণরূপে অপসারণের কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে ইনশাআল্লাহ গতবারের ন্যায় এবারও সময়ের মধ্যেই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করতে পারব।

উল্লেখ্য, করোনাকালের ঈদে এবার পশু জবাইয়ের জন্য সব মিলিয়ে ৩২৯টি স্থান নির্ধারণ করে দিয়েছে দুই সিটি কর্পোরশন। এ সংখ্যা গত বছরের তুলনায় অর্ধেকেরও কম। যদিও শনিবার সকাল থেকে সিটি কর্পোরেশন নির্ধারিত স্থান ব্যতিত রাজধানীর রাস্তা ও অলিগলিতে পশু জবাইয়ের দৃশ্য দেখা গেছে।

কোরবানির বর্জ্য অপসারণ না হলে যে নম্বরে অভিযোগ করবেন

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০১ আগস্ট ২০২০, ০১:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কোরবানির বর্জ্য অপসারণ না হলে যে নম্বরে অভিযোগ করবেন
ছবি: সংগৃহীত

এবারের ঈদে কোরবানির পশু বর্জ্য অপসারণে ‘বিশেষ ব্যবস্থা’ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। 

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম পর্যবেক্ষণে জন্য দক্ষিণের নগর ভবনের শীতলক্ষ্যা হলে খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। 

এজন্য ০১৭০৯৯০০৭০৫ নম্বরে ফোন করে বর্জ্য অপসারণের বিষয়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষে অভিযোগ জানাতে পারবেন দক্ষিণ সিটির বাসিন্দারা। 

শনিবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ঈদের নামাজ পড়ার পর সাংবাদিকদের এ তথ্য দেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। 

এর আগে মেয়র তাপস জানিয়েছিলেন, ঈদের দিনে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ঢাকা নগরীর বর্জ্য অপসারণ করা হবে। শনিবার দুপুর ২টা থেকে এ বিষয়ে বিশেষ কর্মসূচি নেয়া হয়েছে এবং সিটি কর্পোরেশনের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

শুক্রবার রাত ১২টার পর থেকে রাজধানীর হাটগুলোর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি। 

শনিবার ঈদের নামাজ শেষে সাংবাদিকদের মেয়র বলেন, কোরবানির পরের যে বর্জ্য তা আজ দুপুর থেকে সম্পূর্ণরূপে অপসারণের কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে ইনশাআল্লাহ গতবারের ন্যায় এবারও সময়ের মধ্যেই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করতে পারব।

উল্লেখ্য, করোনাকালের ঈদে এবার পশু জবাইয়ের জন্য সব মিলিয়ে ৩২৯টি স্থান নির্ধারণ করে দিয়েছে দুই সিটি কর্পোরশন। এ সংখ্যা গত বছরের তুলনায় অর্ধেকেরও কম। যদিও শনিবার সকাল থেকে সিটি কর্পোরেশন নির্ধারিত স্থান ব্যতিত রাজধানীর রাস্তা ও অলিগলিতে পশু জবাইয়ের দৃশ্য দেখা গেছে।