বাজার করে বাসায় ফেরা হলো না নুরজাহান বেগমের
jugantor
বাজার করে বাসায় ফেরা হলো না নুরজাহান বেগমের

  ঢামেক প্রতিনিধি  

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৫০:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে রাস্তা পার হওয়ার সময় প্রাইভেটকারের ধাক্কায় নুরজাহান বেগম (৫৫) নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় কাদিরাবাদ হাউজিং এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার প্রথমে বাংলাদেশ মেডিকেলে নেয়া হয়। পরে সেখান থেকে দুপুর দেড়টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ছেলে জাকির হোসেন যুগান্তরকে জানান, তার মা বাসা থেকে বাজার করার জন্য বের হয়েছিলেন। বাসার পাশেই কাদিরাবাদ হাউজিং এলাকায় রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি প্রাইভেটকার তাকে ধাক্কা দেয়।

এ ঘটনায় প্রাইভেটকারটি স্থানীয় জনতা আটক করলেও চালক পালিয়ে গেছে।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া যুগান্তরকে জানান, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

নুরজাহান বেগম মোহাম্মাদপুর কাটাসুর রোডের ১৩৬ নম্বর বাসার হাজি ইব্রাহীমের হোসেনের স্ত্রী। তিনি ঢাকার স্থায়ী বাসিন্দা। তিন ছেলে এক মেয়ের জননী ছিলেন তিনি।

বাজার করে বাসায় ফেরা হলো না নুরজাহান বেগমের

 ঢামেক প্রতিনিধি 
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে রাস্তা পার হওয়ার সময় প্রাইভেটকারের ধাক্কায় নুরজাহান বেগম (৫৫) নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় কাদিরাবাদ হাউজিং এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার প্রথমে বাংলাদেশ মেডিকেলে নেয়া হয়। পরে সেখান থেকে দুপুর দেড়টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ছেলে জাকির হোসেন যুগান্তরকে জানান, তার মা বাসা থেকে বাজার করার জন্য বের হয়েছিলেন। বাসার পাশেই কাদিরাবাদ হাউজিং এলাকায় রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি প্রাইভেটকার তাকে ধাক্কা দেয়।

এ ঘটনায় প্রাইভেটকারটি স্থানীয় জনতা আটক করলেও চালক পালিয়ে গেছে। 

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া যুগান্তরকে জানান, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

নুরজাহান বেগম মোহাম্মাদপুর কাটাসুর রোডের ১৩৬ নম্বর বাসার হাজি ইব্রাহীমের হোসেনের স্ত্রী। তিনি ঢাকার স্থায়ী বাসিন্দা। তিন ছেলে এক মেয়ের জননী ছিলেন তিনি।