অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানের পর অনেকেই বিল দিতে চাচ্ছে: আতিক
jugantor
অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানের পর অনেকেই বিল দিতে চাচ্ছে: আতিক

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৪৫:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানের পর অনেকেই বিল দিতে চাচ্ছে: আতিক

ঢাকায় যারা অবৈধভাবে বিলবোর্ডসহ বিভিন্ন স্থাপনা করেছেন, সেগুলো আর রাখতে দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

সারা দেশের চিকিৎসা বর্জ্যের নিরাপদ ব্যবস্থাপনা নিয়ে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক সভায় এ কথা বলেন আতিক। সভায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ফজলে নূর তাপসও উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র আতিক বলেন, অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানে নামার পর এখন অনেকই বিলবোর্ডের বিল দিতে চাচ্ছে। তাই আমার মনে হয় এ রকম সমন্বিতভাবে অভিযান আরও দরকার।

ক্ষোভের সঙ্গে মেয়র বলেন, সবকিছুই কিন্তু অবৈধ হয়ে যাচ্ছে। গ্যাসের লাইন অবৈধ, ইলেকট্রিক লাইন অবৈধ, বিলবোর্ড অবৈধ, সাইনবোর্ড অবৈধ, রাস্তার মধ্যে যত ধরনের রড, সিমেন্ট, বালি সবই অবৈধ।

এটা কিন্তু আর দেয়া যাবে না মাননীয় মন্ত্রী। তাই আজকের মিটিং থেকে একটা মেসেজ দেয়া দরকার যারা অবৈধভাবে একটার পর একটা কাজ করে যাচ্ছে তাদের জন্য মেসেজ।

আতিকুল ইসলাম বলেন, যারা রাস্তায় মেডিকেল বর্জ্য ফেলছে, ইট ইজ এ কিলার। মেডিকেল বর্জ্যটা সাইলেন্ট কিলার, আমাদের কিল করে দিচ্ছে কিন্তু। বর্জ্যগুলোকে কোন জায়গায় ফেলব, কোথায় রাখব, এসব শৃঙ্খলার মধ্যে আনা দরকার।

কবে থেকে অভিযান চালানো শুরু হবে সেই তারিখ দিতে মন্ত্রীকে অনুরোধ জানিয়ে মেয়র বলেন, আমি মনে করি অভিযানের কোনো বিকল্প নেই।

গুলশান লেকের পানির অবস্থা খারাপ হওয়ায় এবার মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সেখানে মাছের পোনা অবমুক্ত করা যায়নি জানিয়ে মেয়র আতিক বলেন, পরে একটি পুকুরে সেই পোনা ছাড়া হয়।

অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানের পর অনেকেই বিল দিতে চাচ্ছে: আতিক

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানের পর অনেকেই বিল দিতে চাচ্ছে: আতিক
ফাইল ছবি

ঢাকায় যারা অবৈধভাবে বিলবোর্ডসহ বিভিন্ন স্থাপনা করেছেন, সেগুলো আর রাখতে দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

সারা দেশের চিকিৎসা বর্জ্যের নিরাপদ ব্যবস্থাপনা নিয়ে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক সভায় এ কথা বলেন আতিক। সভায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ফজলে নূর তাপসও উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র আতিক বলেন, অবৈধ বিলবোর্ড সরাতে অভিযানে নামার পর এখন অনেকই বিলবোর্ডের বিল দিতে চাচ্ছে। তাই আমার মনে হয় এ রকম সমন্বিতভাবে অভিযান আরও দরকার।

ক্ষোভের সঙ্গে মেয়র বলেন, সবকিছুই কিন্তু অবৈধ হয়ে যাচ্ছে। গ্যাসের লাইন অবৈধ, ইলেকট্রিক লাইন অবৈধ, বিলবোর্ড অবৈধ, সাইনবোর্ড অবৈধ, রাস্তার মধ্যে যত ধরনের রড, সিমেন্ট, বালি সবই অবৈধ।

এটা কিন্তু আর দেয়া যাবে না মাননীয় মন্ত্রী। তাই আজকের মিটিং থেকে একটা মেসেজ দেয়া দরকার যারা অবৈধভাবে একটার পর একটা কাজ করে যাচ্ছে তাদের জন্য মেসেজ।

আতিকুল ইসলাম বলেন, যারা রাস্তায় মেডিকেল বর্জ্য ফেলছে, ইট ইজ এ কিলার। মেডিকেল বর্জ্যটা সাইলেন্ট কিলার, আমাদের কিল করে দিচ্ছে কিন্তু। বর্জ্যগুলোকে কোন জায়গায় ফেলব, কোথায় রাখব, এসব শৃঙ্খলার মধ্যে আনা দরকার।

কবে থেকে অভিযান চালানো শুরু হবে সেই তারিখ দিতে মন্ত্রীকে অনুরোধ জানিয়ে মেয়র বলেন, আমি মনে করি অভিযানের কোনো বিকল্প নেই।

গুলশান লেকের পানির অবস্থা খারাপ হওয়ায় এবার মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সেখানে মাছের পোনা অবমুক্ত করা যায়নি জানিয়ে মেয়র আতিক বলেন, পরে একটি পুকুরে সেই পোনা ছাড়া হয়।