চার নদীবন্দরে আলোকচিত্র প্রদর্শনী 'নদী নেবে!'
jugantor
চার নদীবন্দরে আলোকচিত্র প্রদর্শনী 'নদী নেবে!'

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২৩:০০:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নতুন প্রজন্মের মাঝে নদ-নদীর রূপ ও প্রকৃতি জানানোর পাশাপাশি বর্তমান প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে দেশের চারটি নদীবন্দরে চলছে বিশেষ আলোকচিত্র প্রদর্শনী। 'নদী নেবে!' শিরোনামের এ প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধানের একশ' ছবি।

রোববার বিকালে ঢাকা নদীবন্দরে (সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল) প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট স্থপতি ইকবাল হাবিব, বিআইডব্লিউটিএর পরিকল্পনা ও পরিচালন সদস্য মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিশ্ব নদী দিবস-২০২০ উপলক্ষে 'নদী নেবে!'অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শিশু সংগঠন 'ইকরিমিকরি'। প্রদর্শনীতে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ- বিআইডব্লিউটিএ।

আয়োজক সংস্থা 'ইকরিমিকরি' জানিয়েছে, ঢাকা নদীবন্দরের পাশাপাশি একযোগে নারায়ণগঞ্জ, বরিশাল ও চাঁদপুর নদীবন্দরে প্রদর্শন হচ্ছে ১০০ নদীর উন্মুক্ত আলোকচিত্র। এতে বাংলাদেশের নদনদীর বিপন্নতা তুলে ধরা হয়েছে। একই সঙ্গে নতুন প্রজন্মের জন্য নদীর রূপ ও প্রকৃতি ফুটিয়ে তুলেছেন সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান।

অনুষ্ঠানে দেশের নদীসমূহের দখল দূষণ, ভাঙনসহ নানা বিপন্নতার তথ্য তুলে ধরেন সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান। ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা তুলে ধরে নদ-নদীর রূপ-প্রকৃতি ফেরাতে সঠিক ও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, প্রভাবশালীসহ দখলবাজদের কারণে একের পর এক দখল হয়ে যাচ্ছে নদনদী। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে বিভিন্ন সময় উদ্যোগ নেয়া হলেও রাজনৈতিকসহ নানা কারণে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ অবস্থায় নদীর প্রবাহ ঠিক রাখতে দখল উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় বিআইডব্লিউটিএকে আরও ক্ষমতা দেয়া জরুরি। আশা করি সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি অনুধাবন করে পদক্ষেপ নেবে।

ইকরিমিকরি ও সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধানের প্রদর্শনীকে সময়োপযোগী উল্লেখ করে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক বলেন, নদী দখলমুক্ত করে স্বাভাবিক গতিপ্রকৃতি ফেরাতে বদ্ধপরিকর বিআইডব্লিউটিএ। এ লক্ষ্যে সারা দেশে নদ-নদী সম্পর্কে কাজ করা সংগঠন ও ব্যক্তিদের নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করা হবে।

উল্লেখ্য, সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান শিশু সংগঠন ইকরিমিকরির অন্যতম উদ্যোক্তা। সাধারণ মানুষের কাছে নদীর বিপন্নতা ও শিশুদের কাছে নদীর রূপ-প্রকৃতি তুলে ধরার জন্য অনেক দিন ধরে কাজ করছেন সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান এবং ইকরিমিকরি।

চার নদীবন্দরে আলোকচিত্র প্রদর্শনী 'নদী নেবে!'

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নতুন প্রজন্মের মাঝে নদ-নদীর রূপ ও প্রকৃতি জানানোর পাশাপাশি বর্তমান প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে দেশের চারটি নদীবন্দরে চলছে বিশেষ আলোকচিত্র প্রদর্শনী। 'নদী নেবে!' শিরোনামের এ প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধানের একশ' ছবি।

রোববার বিকালে ঢাকা নদীবন্দরে (সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল) প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট স্থপতি ইকবাল হাবিব, বিআইডব্লিউটিএর পরিকল্পনা ও পরিচালন সদস্য মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিশ্ব নদী দিবস-২০২০ উপলক্ষে 'নদী নেবে!'অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শিশু সংগঠন 'ইকরিমিকরি'। প্রদর্শনীতে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ- বিআইডব্লিউটিএ।

আয়োজক সংস্থা 'ইকরিমিকরি' জানিয়েছে, ঢাকা নদীবন্দরের পাশাপাশি একযোগে নারায়ণগঞ্জ, বরিশাল ও চাঁদপুর নদীবন্দরে প্রদর্শন হচ্ছে ১০০ নদীর উন্মুক্ত আলোকচিত্র। এতে বাংলাদেশের নদনদীর বিপন্নতা তুলে ধরা হয়েছে। একই সঙ্গে নতুন প্রজন্মের জন্য নদীর রূপ ও প্রকৃতি ফুটিয়ে তুলেছেন সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান। 

অনুষ্ঠানে দেশের নদীসমূহের দখল দূষণ, ভাঙনসহ নানা বিপন্নতার তথ্য তুলে ধরেন সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান। ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা তুলে ধরে নদ-নদীর রূপ-প্রকৃতি ফেরাতে সঠিক ও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, প্রভাবশালীসহ দখলবাজদের কারণে একের পর এক দখল হয়ে যাচ্ছে নদনদী। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে বিভিন্ন সময় উদ্যোগ নেয়া হলেও রাজনৈতিকসহ নানা কারণে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ অবস্থায় নদীর প্রবাহ ঠিক রাখতে দখল উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় বিআইডব্লিউটিএকে আরও ক্ষমতা দেয়া জরুরি। আশা করি সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি অনুধাবন করে পদক্ষেপ নেবে।

ইকরিমিকরি ও সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধানের প্রদর্শনীকে সময়োপযোগী উল্লেখ করে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক বলেন, নদী দখলমুক্ত করে স্বাভাবিক গতিপ্রকৃতি ফেরাতে বদ্ধপরিকর বিআইডব্লিউটিএ। এ লক্ষ্যে সারা দেশে নদ-নদী সম্পর্কে কাজ করা সংগঠন ও ব্যক্তিদের নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করা হবে।

উল্লেখ্য, সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান শিশু সংগঠন ইকরিমিকরির অন্যতম উদ্যোক্তা। সাধারণ মানুষের কাছে নদীর বিপন্নতা ও শিশুদের কাছে নদীর রূপ-প্রকৃতি তুলে ধরার জন্য অনেক দিন ধরে কাজ করছেন সংবাদ আলোকচিত্রী কাকলী প্রধান এবং ইকরিমিকরি।