মহানবীর (সা.) ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করায় ঢাবি শিক্ষকের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ
jugantor
মহানবীর (সা.) ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করায় ঢাবি শিক্ষকের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

  ঢাবি প্রতিনিধি  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ২২:২৯:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানবীর (সা.) ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করায় ঢাবি শিক্ষকের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

ফ্রান্সের ম্যাগাজিন শার্লি এবদোতে মহানবী হজরত মোহাম্মদের (সা.) ব্যাঙ্গাত্মক চিত্র প্রকাশ করায় বিশ্বজুড়েই তীব্র প্রতিবাদ হচ্ছে। আর বাংলাদেশ থেকে মুসলিম সম্প্রদায়ও এর প্রতিবাদে নানা ধরনের কর্মসূচি পালন করছেন।

এরই অংশ হিসেবে ঢাবির এক সহকারী অধ্যাপক ফরাসি পণ্য বয়কটের আহবান সংবলিত প্ল্যাকার্ড নিয় প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

সোমবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে তিনি এ প্রতিবাদ জানান।

এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. ইমরান হোসেনের হাতে ‘বয়কট ফ্রান্স প্রোডাক্ট’ ও ছেলে আব্দুল্লাহ ইরফানের (৬) হাতে ‘উই লাভ প্রপেট মুহাম্মদ’ (সা.) সংবলিত প্ল্যাকার্ড দেখা গেছে।

তার প্রতিবাদের বিষয়ে মো. ইমরান হোসেন বলেন, ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয়ভাবে ইসলাম বিদ্বেষ ছড়ানো হয়েছে। দেশটির সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে তাদের হিংসাত্মক মনোভাব প্রকাশ করেছে। প্রত্যেক ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উচিত যার যার জায়গা থেকে এর প্রতিবাদ করা।

একজন মুসলিম হিসেবে আমরা এ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি। আমরা ফ্রান্সের সব পণ্য বয়কটের আহবান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, অনেকে আমাদের বাবা-ছেলের কর্মসূচিকে লোক দেখানো মনে করে ভুল করতে পারেন। এখানে লোক দেখানোর কিছু নেই। মুসলিম হিসেবে ইমানি দায়িত্ব মনে করে এখানে অবস্থান নিয়েছি। সবার এভাবে প্রতিবাদ করা উচিত। ফ্রান্স সরকারকে এর জন্য ক্ষমা চাইতে হবে।

মহানবীর (সা.) ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করায় ঢাবি শিক্ষকের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

 ঢাবি প্রতিনিধি 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মহানবীর (সা.) ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করায় ঢাবি শিক্ষকের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ
ছবি: যুগান্তর

ফ্রান্সের ম্যাগাজিন শার্লি এবদোতে মহানবী হজরত মোহাম্মদের (সা.) ব্যাঙ্গাত্মক চিত্র প্রকাশ করায় বিশ্বজুড়েই তীব্র প্রতিবাদ হচ্ছে। আর বাংলাদেশ থেকে মুসলিম সম্প্রদায়ও এর প্রতিবাদে নানা ধরনের কর্মসূচি পালন করছেন। 

এরই অংশ হিসেবে ঢাবির এক সহকারী অধ্যাপক ফরাসি পণ্য বয়কটের আহবান সংবলিত প্ল্যাকার্ড নিয় প্রতিবাদ জানিয়েছেন। 

সোমবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে তিনি এ প্রতিবাদ জানান। 

এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. ইমরান হোসেনের হাতে ‘বয়কট ফ্রান্স প্রোডাক্ট’ ও ছেলে আব্দুল্লাহ ইরফানের (৬) হাতে ‘উই লাভ প্রপেট মুহাম্মদ’ (সা.) সংবলিত প্ল্যাকার্ড দেখা গেছে।

তার প্রতিবাদের বিষয়ে মো. ইমরান হোসেন বলেন, ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয়ভাবে ইসলাম বিদ্বেষ ছড়ানো হয়েছে। দেশটির সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে তাদের হিংসাত্মক মনোভাব প্রকাশ করেছে। প্রত্যেক ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উচিত যার যার জায়গা থেকে এর প্রতিবাদ করা। 

একজন মুসলিম হিসেবে আমরা এ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি। আমরা ফ্রান্সের সব পণ্য বয়কটের আহবান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, অনেকে আমাদের বাবা-ছেলের কর্মসূচিকে লোক দেখানো মনে করে ভুল করতে পারেন। এখানে লোক দেখানোর কিছু নেই। মুসলিম হিসেবে ইমানি দায়িত্ব মনে করে এখানে অবস্থান নিয়েছি। সবার এভাবে প্রতিবাদ করা উচিত। ফ্রান্স সরকারকে এর জন্য ক্ষমা চাইতে হবে।