‘আ’লীগ গায়ে পড়ে ঝামেলা বাধানোর চেষ্টা করছে’
jugantor
‘আ’লীগ গায়ে পড়ে ঝামেলা বাধানোর চেষ্টা করছে’

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৮ অক্টোবর ২০২০, ২১:৫৫:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন অভিযোগ করেছেন, আওয়ামী লীগ গায়ে পড়ে ঝামেলা বাধানোর চেষ্টা করছে। তারা মঙ্গলবার আমার বাসার সামনে অনেকক্ষণ মিছিল করেছে। সেখানে আমাদেরও কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। তবে আমরা কোনো ঝামেলায় জড়াতে চাই না। কারণ, আমাদের সঙ্গে ভোটাররা আছেন। তারা ১২ নভেম্বর ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছেন।

বুধবার সকালে উত্তরার নিজ নির্বাচনী কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

জাহাঙ্গীর বলেন, নেতাকর্মীরা জানপ্রাণ দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। শেষ পর্যন্ত আমরা মাঠে থাকব। তিনি বলেন, প্রতিটি গণসংযোগে আওয়ামী লীগ বাধা দিচ্ছে। বিষয়টি নির্বাচন কমিশন ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে জানালেও তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না। প্রার্থী হিসেবে আমাকেও বাধা দেয়া হচ্ছে। তাহলে এটা কেমন নির্বাচন? অথচ প্রতিটি কর্মসূচি নেয়ার আগে পুলিশের অনুমতি নেয়া হচ্ছে। এই জোনের পুলিশের ডিসিকে গত দু’দিন ধরে ফোন দিয়ে যাচ্ছি তিনি ফোন রিসিভ করছেন না।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনী বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। আমরা যেখানে কর্মসূচি দিচ্ছি সেখানে তারা পাল্টা কর্মসূচি দিচ্ছে। যতই বাধা দেয়া হোক শেষ পর্যন্ত আমরা মাঠে থাকব। আমরা গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। আশা করি নির্বাচন কমিশন প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ভয়হীন নির্বাচনী পরিবেশ উপহার দেবে।

এ সময় জাহাঙ্গীরের সঙ্গে ছিলেন- বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের উত্তরের সভাপতি ফখরুল ইসলাম রবিন, সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক রিয়াজ প্রমুখ।

‘আ’লীগ গায়ে পড়ে ঝামেলা বাধানোর চেষ্টা করছে’

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন অভিযোগ করেছেন, আওয়ামী লীগ গায়ে পড়ে ঝামেলা বাধানোর চেষ্টা করছে। তারা মঙ্গলবার আমার বাসার সামনে অনেকক্ষণ মিছিল করেছে। সেখানে আমাদেরও কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। তবে আমরা কোনো ঝামেলায় জড়াতে চাই না। কারণ, আমাদের সঙ্গে ভোটাররা আছেন। তারা ১২ নভেম্বর ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছেন। 

বুধবার সকালে উত্তরার নিজ নির্বাচনী কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

জাহাঙ্গীর বলেন, নেতাকর্মীরা জানপ্রাণ দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। শেষ পর্যন্ত আমরা মাঠে থাকব। তিনি বলেন, প্রতিটি গণসংযোগে আওয়ামী লীগ বাধা দিচ্ছে। বিষয়টি নির্বাচন কমিশন ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে জানালেও তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না। প্রার্থী হিসেবে আমাকেও বাধা দেয়া হচ্ছে। তাহলে এটা কেমন নির্বাচন? অথচ প্রতিটি কর্মসূচি নেয়ার আগে পুলিশের অনুমতি নেয়া হচ্ছে। এই জোনের পুলিশের ডিসিকে গত দু’দিন ধরে ফোন দিয়ে যাচ্ছি তিনি ফোন রিসিভ করছেন না। 

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনী বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। আমরা যেখানে কর্মসূচি দিচ্ছি সেখানে তারা পাল্টা কর্মসূচি দিচ্ছে। যতই বাধা দেয়া হোক শেষ পর্যন্ত আমরা মাঠে থাকব। আমরা গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। আশা করি নির্বাচন কমিশন প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ভয়হীন নির্বাচনী পরিবেশ উপহার দেবে।

এ সময় জাহাঙ্গীরের সঙ্গে ছিলেন- বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের উত্তরের সভাপতি ফখরুল ইসলাম রবিন, সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক রিয়াজ প্রমুখ।